সারাদেশ

ট্রলি বন্ধের দাবিতে গ্রামবাসীর অভিযোগ

কামরুল সিকদার, বোয়ালমারী (ফরিদপুর): ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে বিভিন্ন স্থানের ফসলি জমি থেকে মাটি কেটে স্থানীয় ইটভাটায় বিক্রির হিড়িক চলছে। আর এ মাটি টানার কাজে নিয়োজিত ট্রলির বেপরোয়া চলাচলের কারণে যেমন স্বাস্থ্য ঝুঁকি দেখা দিচ্ছে তেমনি গ্রামীণ সড়ক মহাসড়কের ক্ষতি হচ্ছে। ট্রলিতে মাটি নেওয়ার সময় সড়ক মহাসড়কে মাটি পড়ে চলাচলে অনুপযোগী হয়ে পড়ছে। সামনে বৃষ্টির মৌসুমে এসব সড়ক মহাসড়কে দুর্ঘটনার সম্ভবনাও রয়েছে। এ ব্যাপারে উপজেলা প্রশাসন বরাবরে বিভিন্ন স্থানের ভুক্তভোগীরা লিখিত অভিযোগ করলেও মিলছে না কোন প্রতিকার। তবে এ ব্যাপারে ইউএনও ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান অব্যাহত রেখেছে বলে জানিয়েছেন ইউএনও মোশারেফ হোসাইন।

আরও পড়ুন: বিমা কোম্পানির বদনাম হোক, চাই না

লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার চতুল ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের বাইখীর চৌরাস্তা বাজার হতে শুকদেবনগর পর্যন্ত রাস্তাটি জনগণের যাতায়াতের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। ওই রাস্তাটির আশু সংস্কার প্রয়োজন। গত কয়েকদিন ধরে ওই রাস্তা দিয়ে মাটি টানা ট্রলি চলাচলের কারণে রাস্তাটি একেবারেই অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এসব মাটির ট্রলিগুলো মাঝকান্দি—বোয়ালমারী—ভাটিয়াপাড়া আঞ্চলিক মহাসড়ক দিয়ে বিভিন্ন ইটভাটায় নেওয়া হচ্ছে। ট্রলিগুলো চলাচলের কারণে সৃষ্ট ধুলাবালির কারণে রাস্তার দুই পাশের ঘরবাড়ি ও বাইখীর চৌরাস্তা বাজারের দোকানপাট চেনাই যাচ্ছে না। ট্রলি—মাটির ধুলিকনায় এসব সাদা হয়ে গেছে। এ কারণে ওই এলাকায় বসবাসরত জনসাধারণ এবং বাইখীর চৌরাস্তার ব্যবসায়ীগণ স্বাস্থ্য ঝুঁকির মধ্যে পড়েছে। এমনকি রাস্তাটিও চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ছে। ওই সড়ক দ্বারা দুটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও দুটি মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরাসহ শতশত লোকজন যাতায়াত করেন। জনস্বার্থে ওই রাস্তাটি সংরক্ষণ ও ভাটায় মাটি টানা ট্রলি চলাচলে নিষেধাজ্ঞার জন্য এলাকাবাসীর পক্ষে ৮০ জন ব্যক্তি বোয়ালমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোশারেফ হোসাইনের নিকট লিখিত অভিযোগ করেছেন। অভিযোগকারীদের মধ্যে অন্যতম কয়েকজন হলেন, সংশ্লিষ্ট এলাকার মো. সামচুল হক, ইউনুচ শেখ, সামাদ শেখ, সাজ্জাদ মোল্যা ও নাজমুল ফকির প্রমুখ। অপরদিকে বোয়ালমারী পৌরসভার সীমান্তবর্তী চতুল ইউনিয়নের বিল দাদুড়িয়ায় চলছে কৃষি জমি থেকে মাটি কাটা। জমির মালিক মো. কাশেম মোল্যা তার জমি থেকে অবৈধভাবে ভেকু দিয়ে মাটি উত্তোলন করে মাটি ব্যবসায়ী মো. সাহেব আলীর কাছে ৬ লাখ টাকায় মাটি বিক্রি বলে জানা যায়। এতে পাশের ফসলি জমির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির সম্ভবনা রয়েছে। ক্ষতি সাধিত হবে বলে লিখিত অভিযোগে অভিযোগকারীরা উল্লেখ করেছেন। এ কারণে কলারণ জুট মিলের পশ্চিম পাশের জমির মালিকরা গত ২০ ফেব্রুয়ারি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ করেন। এসব অভিযোগের পরেও উপজেলা প্রশাসন ফসলি জমি থেকে মাটি কাটা বন্ধে কোন কার্যকরী পদক্ষেপ নিচ্ছেন না বলে জানিয়েছেন চতুল ইউনিয়ন পরিষদের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য যুবলীগ নেতা মো. ওহিদুজ্জামান।

আরও পড়ুন: অনেক জঙ্গিকে খুঁজে বের করেছি

অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে গতকাল বুধবার দুপুরে বোয়ালমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোশারেফ হোসাইন বলেন, এলাকাবাসীর অভিযোগের ভিত্তিতে সরেজমিন পরিদর্শন করা হয়েছে। তবে অভিযোগে যে বিষয়টি উল্লেখ করা হয়েছে সেটা সঠিক নয়। প্রত্যেক এলাকায় গ্রুপিং থাকে এক গ্রুপ এটা হয়তো করেছে। আর ফসলি জমি থেকে ট্রলিতে মাটি টানার বিষয়টি নিয়ে অভিযান অব্যহত রয়েছে। কয়েকদিন আগে কয়েকটি ট্রলি গাড়ি ধরে এনে সংশ্লিষ্টদের জরিমানার আওতায় আনা হয়েছিলো। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী কোন ভাবেই ফসলি জমি নষ্ট করা যাবে না। যারা এটা করবে তাদেরকেই জরিমানা করে এগুলো বন্ধ করা হবে।

সান নিউজ/এমআর

Copyright © Sunnews24x7
সবচেয়ে
পঠিত
সাম্প্রতিক

কোপার শিরোপা আর্জেন্টিনার

স্পোর্টস ডেস্ক : কোপা আমেরিকার ফাইনালে লাউতারো মার্টিনেজের গ...

অক্ষয়কুমার দত্ত’র জন্ম

নিজস্ব প্রতিবেদক: আজকের ঘটনা কাল অতীত। প্রত্যেকটি অতীত সময়ের...

শিক্ষার্থী-ছাত্রলীগের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা বিশ্ববিদ্য...

সীমান্তে গুলিতে দুই বাংলাদেশি নিহত

জেলা প্রতিনিধি : সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ সীমান্তে ভারতীয় খাসিয়া...

পত্রপত্রিকা দেখে ঘাবড়াবার কিছু নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক: সরকারি কর্মকর্তাদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী...

বাফুফের জন্মদিন

নিজস্ব প্রতিবেদক: ১৯৭১ সালের (১৬...

২ বিভাগ- ১ জেলায় তাপপ্রবাহ

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশ আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে দেশের ২ বিভ...

বহিরাগতদের জন্যই পুলিশ মোতায়েন

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা বিশ্ববিদ্য...

ঢাবিতে রাতেও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক: আজ সারা দিনভর দ...

অনুরোধ প্রত্যাখ্যান শিক্ষার্থীদে

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্দোলনরত শিক্ষার্থীর...

লাইফস্টাইল
বিনোদন
sunnews24x7 advertisement
খেলা