ফিচার

কোরআন শিক্ষার ফেরিওয়ালা হান্নান

নিজস্ব প্রতিনিধি, মিরপুর (কুষ্টিয়া): কুষ্টিয়ার মিরপুর পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের সুলতানপুর গ্রামের বাসিন্দা হাফেজ আব্দুল হান্নান দীর্ঘ প্রায় ৩৯ বছর ধরে অনেকটা নিভৃতে কোরআন শিক্ষা দিচ্ছেন। মানুষকে কোরআনে শিক্ষা দিয়ে আনন্দ পান তিনি।

তবে কোরআন পড়ানোর জন্য কারো থেকে কোন প্রকার পারিশ্রমিক নেন না তিনি। বাবার কাছ থেকে পাওয়া এককাঠা জমিতে নিজের টাকায় গ্রামে একটি মক্তব গড়ে তুলেছেন হাফেজ আব্দুল হান্নান।

ভোরের আলো ফুটলেই এখানে কোরআন শিক্ষা কার্যক্রম চলতে থাকে। এছাড়াও প্রতিদিন বিকালে গ্রামের স্থানীয় গোরস্থান ময়দানে শিশুসহ বিভিন্ন বয়সী মানুষকে দ্বিতীয় দফা কোরআন শেখান তিনি। পালাক্রমে এই দুই স্থানে কোরআন শিক্ষা নিতে আসেন দূরদূরান্তের শতাধিক মানুষ।

জানা যায়, প্রথম দিকে মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে কোরআন পড়াতেন আব্দুল হান্নান। ১৯৮৪ সালে বাড়ির উঠানে গ্রামের ছেলেমেয়েদের কোরআন শেখানো শুরু করেন। শিক্ষার্থীর সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় ১৯৮৬ সালে বাড়ির পাশে রাস্তার ধারে একটি মাটির ছাপড়া ঘর বানিয়ে শিক্ষাদান অব্যাহত রাখেন।

এরপর ১৯৯৫ সালে বাবা আব্দুল আজিজ শেখ ছেলে হান্নানকে এককাঠা জমি দেন। এতে গড়ে তোলা হয় মক্তব। এখনে বিভিন্ন বয়সী মানুষ পড়তে আসেন।

বিনা সম্মানীতে পড়ানো প্রসঙ্গে হাফেজ আব্দুল হান্নান বলেন, যখন কোরআনের শিক্ষা নিয়েছি তখন আমাদের শিক্ষক একদিন বলেন, ‘যে নিজে কোরআন শিক্ষা গ্রহণ করে এবং অন্যকে শিক্ষা দেয় সে রাসূল (সা.)-এর কাছে উত্তম ব্যক্তি।’ তখন থেকে মানুষকে টাকা ছাড়া কোরআন পড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। যতদিন বেঁচে থাকবো ততদিন কোরআন শিক্ষাদানের কাজটি করে যেতে চাই।

আব্দুল হান্নান জানান, নিজের গ্রাম ছাড়াও আশপাশের এলাকার কয়েক হাজার মানুষকে বিনা সম্মানিতে কোরআন পড়া শিখিয়েছি। যেসব শিক্ষার্থীর কোরআন শরীফ কেনার সামর্থ্য নেই তাদের বিনামূল্যে পবিত্র গ্রন্থটি উপহার দিয়েছি। অনেক সময় নিজে না পারলে মানুষের কাছ থেকে ব্যবস্থা করে দেই।

তিনি আরও জানান, সুলতানপুর গ্রাম ও আশপাশের এলাকার কোনও পুরুষ মারা গেলে দাফন-কাফন, গোসল ও জানাজাসহ সব কাজে স্বেচ্ছায় অংশগ্রহণ করি। স্থানীয় একটি মসজিদে ইমামতি করে বছরে কিছু ধান পাওয়া যায়। এছাড়া নিজের দুই বিঘা জমিতে চাষাবাদ করে সংসার চলে যায়।

সান নিউজ/ এনএএম/এমকেএইচ

Copyright © Sunnews24x7
সবচেয়ে
পঠিত
সাম্প্রতিক

নিউইয়র্ক আ'লীগের সমাবেশে বিএনপির হামলা!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিউইয়র্ক সফরকে...

কাদের মির্জার সহায়তায় ২ মাদক কারবারি আটক

নোয়াখালী প্রতিনিধি: জেলার বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদ...

সরকারের কোন ভ্রূক্ষেপ নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক: একদিকে দারিদ্র্য, অন্যদিকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠ...

রাজশাহীতে আরও সাত জনের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিনিধি, রাজশাহী: রাজশাহীতে আরও সাত জনের মৃত্যু হয়ে...

ক্যাম্পাস খোলার দাবিতে রাবি শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন 

নিজস্ব প্রতিবেদক: আবাসিক হল ও ক্যাম্পাস খোলার দাবিতে মানববন্...

বিশ্বকাপে চ্যালেঞ্জ নিতে তৈরি শামীম

স্পোর্টস ডেস্ক: তরুণ ব্যাটসম্যান শামীম পাটোয়ারি আস...

দীর্ঘ মেয়াদী অর্থায়নের প্রধান উৎস হবে পুঁজিবাজার

নিজস্ব প্রতিবেদক: ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী...

দেড় কোটি মানুষের টিকার ডোজ সম্পন্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশে এক কোটি ৫০ লাখ ২৫ হাজা...

বিশ্ব নেতাদের জোরালো পদক্ষেপ চান প্রধানমন্ত্রী

সাননিউজ ডেস্ক: আগামী প্রজন্মের জন্য একটি টেকসই ভবি...

বিপুল ভোটে দ্বিতীয়বার মেয়র হলেন শান্ত

নিজস্ব প্রতিনিধি, যশোর: যশোরের অভয়নগরে নওয়াপাড়া পৌরসভা সাধার...

লাইফস্টাইল
বিনোদন
sunnews24x7 advertisement
খেলা