ছবি: সংগৃহীত
ফিচার

চরাঞ্চলে তরমুজের বাম্পার ফলন

গাইবান্ধা প্রতিনিধি: গাইবান্ধার চরাঞ্চলে অনাবাদি জমিতে বাণিজ্যিকভাবে তরমুজ চাষ হয়েছে। এক সময়ের ধু-ধু বালুচরে মাইলের পর মাইল যেদিকে চোখ যায়, দেখা যায় কেবল তরমুজ আর তরমুজ।

আরও পড়ুন: হিটস্ট্রোকে কৃষকের মৃত্যু

এ জমিগুলো একসময় পতিত ছিল। এখন এসব জমিই সুখের স্বপ্ন দেখাচ্ছে চাষিদের। যেন ধু-ধু চরে কৃষকের সবুজ-স্বপ্ন। গাইবান্ধার এসব বালুচরে আগে ফসল ফলেনি, ছিল অনাবাদি। কিন্তু এখন তা সবুজের সমারোহ। বিস্তীর্ণ বালুচরে সবুজ লতায় মোড়ানো গাছ।

অনুকূল আবহাওয়া ও বালি মিশ্রিত মাটি হওয়ায় গাইবান্ধা সদর উপজেলার মোল্লাারচরে ৩০০ বিঘা, সুন্দরগঞ্জ উপজেলার লালচামারে ২৫০ বিঘা ও ফুলছড়ি উপজেলার গুপ্তমনির চরে প্রায় ১৫০ বিঘা জমিতে চাষ হয়েছে তরমুজ।

রবি মৌসুমে এসব চরের অধিকাংশ জমি খালি পড়ে থাকলেও চলতি বছর তরমুজ চাষ করে আশার আলো দেখছেন কৃষকরা। দামও ভালো পাচ্ছেন। তরমুজেই চাঙা হয়ে উঠছেন চরের চাষিরা।

আরও পড়ুন: ধান কাটার মেশিনে শিশুর মৃত্যু

গাইবান্ধা জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্রে জানা যায়, চলতি মৌসুমে জেলায় তরমুজ চাষ হয়েছে ১১৫ হেক্টর জমিতে। এর মধ্যে সদর উপজেলায় ৪৪ হেক্টর, সুন্দরগঞ্জে ৪১ হেক্টর, ফুলছড়িতে ২৯ হেক্টর ও সাদুলাপুর উপজেলায় ১ হেক্টর জমিতে তরমুজ চাষ হয়েছে।

প্রতি বছর জেলার চরাঞ্চল ও মূল ভূখন্ডের ফসলি জমিতে তরমুজের চাষ হলেও এ বছরই প্রথমবারের মতো চরের অনাবাদি জমিতে বাণিজ্যিকভাবে তরমুজ চাষ হয়েছে প্রায় ৯৪ হেক্টর জমিতে।

জেলায় মোট উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ১৫০০ টন। যার বাজার মূল্য প্রায় ৬ কোটি টাকা। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় তরমুজের বাম্পার ফলন হয়েছে। দাম ভালো পাওয়ায় খুশি কৃষকগণ।

আরও পড়ুন: খরার ঝুঁকিতে রংপুর, কৃষিক্ষেত্রে ক্ষতির শঙ্কা

ফুলছড়ি উপজেলার গুপ্তমনির চর দেখা যায়, ক্ষেত থেকে তরমুজ তুলে বিক্রি করতে ব্যস্ত কৃষকরা। রংপুর, কুড়িগ্রাম ও লালমনিরহাটসহ বিভিন্ন স্থান থেকে ব্যবসায়ীরা এসে তরমুজ নিয়ে যাচ্ছে।

কৃষক আতিকুল ইসলাম বলেন, ৮ বছর ধরে তিনি তরমুজ চাষ করছেন। গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার কঞ্চিপাড়া ইউনিয়নের গুপ্তমনি চরের অনাবাদি জমি লিজ নিয়ে কয়েকজন কৃষক তরমুজ চাষ করেন। ১৫০ বিঘা জমিতে তরমুজ চাষ করতে বীজ, সার, কীটনাশক, সেচ, পরিবহন ও শ্রমিকের মজুরিসহ খরচ হয়েছে প্রায় ৮ লক্ষ টাকা।

আরও পড়ুন: প্রবেশ মূল্য ২০ টাকা, ফুল ছিঁড়লে ৫০০ টাকা জরিমানা!

ইতিমধ্যে ২ দফায় তরমুজ বিক্রয় করে ভালো দাম পেয়েছেন। তরমুজ বিক্রয় করে মৌসুম শেষে অন্তত ৭ লক্ষ টাকা আয় করতে পারবেন বলে আশা করা হচ্ছে। গত ডিসেম্বরে জমি প্রস্তুত করে পাকিজা জাতের ৪০ হাজার বীজ বপন করেন।

৫ মাস পর এপ্রিলে ফল পরিপক্ক হয়ে বিক্রয়ের উপযোগী হয়েছে। মূল ভূখন্ডের জমির তুলনায় চরে ফলন ভালো হয়েছে। তরমুজগুলো আকারেও বড়। দামও ভালো পাচ্ছেন।

তিনি আরও জানান, ইতিমধ্যে ৫০০ মণ তরমুজ বিক্রয় করা হয়েছে। আরও অন্তত ৮০০ মণ ফল পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বর্তমানে প্রতি মণ তরমুজের বাজার দর ১১৫০ টাকা। সে হিসেবে, প্রায় ১৫ লক্ষ টাকার তরমুজ বিক্রয় হতে পারে।

আরও পড়ুন: পাহাড়ের সম্ভাবনাময় শিল্প "ফুলঝাড়ু"

কৃষিবিদ সাদেকুল ইসলাম গোলাপ বলেন, তরমুজ ক্ষেত পরিদর্শন করে সার ব্যবহার ও রোগ প্রতিরোধের জন্য চাষিদের বিভিন্ন পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। আবহাওয়া উপযোগী থাকায় ফলন ভালো হয়েছে। তরমুজ চাষে পরিশ্রম বেশি হলেও অন্যান্য রবি শস্য থেকে এটিতে কয়েকগুণ বেশি লাভ হয়।

গাইবান্ধা জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক মো. খোরশেদ আলম বলেন, গাইবান্ধায় আগে থেকে তরমুজ চাষ হয়ে আসছে। প্রতিবছর তরমুজ চাষির সংখ্যা বাড়ছে। জেলার ৪ উপজেলার ১৬৫ চর-দ্বীপচর এলাকায় তরমুজ চাষে কৃষকদের মধ্যে আগ্রহ বাড়ছে।

সান নিউজ/এনজে

Copyright © Sunnews24x7
সবচেয়ে
পঠিত
সাম্প্রতিক

এমপি হওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছি

বিনোদন ডেস্ক : ঢাকাই সিনেমার আলোচিত চিত্রনায়িকা মিষ্টি জান্ন...

স্কাউট প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপনের জমির দলিল হস্তান্তর

নাটোর প্রতিনিধি: নাটোর জেলা স্কাউটসের জন্য তথ্য প্রযুক্তি ভি...

ময়মনসিংহে বাসচাপায় নিহত ২

নিজস্ব প্রতিবেদক: ময়মনসিংহের ভালুকায় বাসের চাপায় নিহত হয়েছেন...

চুয়াডাঙ্গায় দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা

জেলা প্রতিনিধি : চুয়াডাঙ্গায় ফের ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্র...

টিভিতে আজকের খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক: প্রতিদিনের মতো আজ...

লঞ্চ চলাচল বন্ধের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক : বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট গভীর নিম্নচাপকে কেন্দ্র...

রাজধানীতে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে নিহত ১

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীর রামপুরার সি ব্লকে নির্মাণাধীন একট...

সদস্যপদ ছাড়তে চান ওমর সানী

বিনোদন ডেস্ক: বর্তমান বাংলাদেশ চল...

আনারকে ২ বার হত্যার চেষ্টা করা হয়

নিজস্ব প্রতিবেদক : এমপি আনোয়ারুল আজীম আনারকে হত্যার আগে আরও...

হোয়াটসঅ্যাপে নতুন প্রতারণার ফাঁদ

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক: বর্তমানে অনল...

লাইফস্টাইল
বিনোদন
sunnews24x7 advertisement
খেলা