ছবি: সংগৃহীত
সারাদেশ

৩ দিনের ছুটিতে কক্সবাজারে লাখো পর্যটকের সমাগম

এম. এ আজিজ রাসেল, কক্সবাজার: টানা তিন দিনের সরকারি ছুটি এবং সপ্তাহব্যাপী পর্যটন মেলা ও বীচ কার্নিভাল ঘিরে কক্সবাজারে লাখো পর্যটকের সমাগম ঘটেছে।

আরও পড়ুন: ডিএনসিসির ৭ দিনব্যাপী চিত্র প্রদর্শনী

হোটেল-মোটেলে অনন্ত ৩ লক্ষাধিক পর্যটক অবস্থান করছে। এতে সমুদ্র সৈকত ও মেলা প্রাঙ্গণের পাশাপাশি বিনোদন কেন্দ্রগুলো পর্যটকদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে।

শুক্রবার (২৯ সেপ্টেম্বর) সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের লাবণী থেকে কলাতলী পয়েন্টের তিন কিলোমিটার এলাকা জনসমুদ্রে রূপ নিয়েছে। তাদের কেউ এসেছেন বন্ধুদের সাথে, কেউ পরিবার নিয়ে।

আরও পড়ুন: খাগড়াছড়িতে প্রধানমন্ত্রীর জন্মবার্ষিকী পালন

এসব ভ্রমণ পিপাসুদের কেউ বিস্তৃর্ণ সৈকতের বালিয়াড়িতে ঘুরাঘুরি, কেউ বিচ বাইক, জেটস্কি ও ঘোড়ায় চড়ে, কেউ সাগরের নীল জলে গোসল করে, আবার কেউ কিটকটে বসে পরশ নিচ্ছেন হিমেল হাওয়ার।

মেলা উপলক্ষে হোটেল-মোটেল ও খাবার রেস্তোরাঁসহ পর্যটনের বিভিন্ন খাতে ছাড় দেওয়ার কথা থাকলেও এ নিয়ে পর্যটকরা জানিয়েছেন ভিন্ন তথ্য।

সপ্তাহব্যাপী পর্যটন মেলাকে ঘিরে হোটেল কক্ষ ও খাবার রেস্তোরাঁসহ বিনোদনের বিভিন্ন সেবাখাতে ছাড়ে কথা বললেও কেউ পেয়েছে, কেউ পায়নি বলে জানিয়েছেন পর্যটকরা। আবারও কেউ কেউ ছাড় তো নয়ই, উল্টো অতিরিক্ত দাম নেওয়ার অভিযোগ করেছেন। তবে নিরাপত্তাসহ সার্বিক ব্যবস্থাপনা নিয়ে সন্তুষ্ট তারা।

আরও পড়ুন: শরীয়তপুরে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল

শুক্রবার বিকালে হোটেল-মোটেল ও রেস্তোরাঁগুলো ছাড় দিচ্ছে কিনা, তা সরাসরি তদারকি করেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইয়ামিন হোসেন।

এ সময় তিনি পর্যটক ও হোটেল কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলেন। পর্যটকদের অভিযোগের ভিত্তিতে কয়েকটি হোটেল ও রেস্তোরাঁকে সতর্ক করা হয়েছে।

নেত্রকোনা থেকে সপরিবারে আসা সরকারি চাকরিজীবী শাহানুর ইসলাম বলেন, পর্যটন মেলা বসেছে শুনে বেড়ানোর জন্য কক্সবাজার বেছে নিলাম। মেলার শুরুর দিন হিসেবে আবাসিক হোটেলে আমরা স্বাভাবিক দামে রুম পেলেও আমার এক আত্মীয়ের জন্য একই ধরনের রুম দেখতে গেলে দাম বেশি চায় হোটেল কর্তৃপক্ষ।

তারা বলেন, রুম সীমিত, তাই ওই দামে দেওয়া যাচ্ছে না।

আরও পড়ুন: মোরেলগঞ্জ মাদ্রাসায় ঈদে মিলাদুন্নবী (সঃ) পালিত

নারায়ণগঞ্জ থেকে আসা সাজবীর-রেহেনা দম্পতি বলেন, মেলা উপলক্ষে ছাড়ের কথা বললেও ছাড় পাচ্ছি না। বরং অতিরিক্ত দামে রুম নিতে হচ্ছে। তবে হোটেলে খাবারের দাম আগের মতো স্বাভাবিক রয়েছে।

পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা বলছেন, বৃহস্পতিবার (২৮ সেপ্টেম্বর) থেকে টানা তিন দিন সরকারি ছুটি থাকায় অনেকে মেলা উপলক্ষে ছাড় ঘোষণার আগে হোটেল কক্ষ বুকিং দিয়েছিলেন। এক্ষেত্রে ছাড় ছাড়াই তাদের স্বাভাবিক দামে দিতে হয়েছে।

কিছু হোটেল কর্তৃপক্ষ বিপুল সংখ্যক পর্যটক সমাগমকে কেন্দ্র করে অসাধু উপায় অবলম্বন করে থাকতে পারে। খাবার রেস্তোরাঁর ক্ষেত্রে মৌসুমী ব্যবসায়ী এবং নিয়ন্ত্রণহীন কিছু প্রতিষ্ঠানকে দায়ী করেছেন তারা।

আরও পড়ুন: ভোলায় প্রধানমন্ত্রীর ৭৭তম জন্মদিন পালিত

হোটেল দি গ্র্যান্ড স্যান্ডির চেয়ারম্যান আব্দুর রহমান বলেন, পর্যটকদের স্বাগত জানাতে আমরা সব সময় প্রস্তুত। তাই সাধ্য মতো চেষ্টা করছি ছাড় দেওয়ার জন্য। পর্যটকরা যাতে হয়রানি না হন, সেদিকে আমাদের নজর রয়েছে। সামনে আরও পর্যটক আসবে কক্সবাজারে। তাদের সেবা দিতে সার্বক্ষণিক প্রস্তুত রয়েছি।

কক্সবাজার রেস্তোরাঁ মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক রাশেদুল ইসলাম ডালিম বলেন, দ্রব্য মূল্যের উর্ধ্বগতিতেও আমরা সূলভ মূল্যে খাবারের দাম রাখছি। তালিকার বাইরে খাবারের অতিরিক্ত মূল্য রাখা যাবে না। যদি কোনো হোটেল-রেস্তোরাঁর বিরুদ্ধে অতিরিক্ত মূল্য রাখার অভিযোগ পাই, তাহলে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কক্সবাজার হোটেল-মোটেল গেস্ট হাউস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সেলিম নেওয়াজ বলেন, এই মুহূর্তে কক্সবাজারে লাখো পর্যটক অবস্থান করছে। হোটেল-মোটেলের কক্ষ অর্ধেকের বেশি বুকিং হয়েছে। ২/১ দিন পর আরও বেশি পর্যটক কক্সবাজারে আসবে বলে ধারণা করছি।

আরও পড়ুন: ভোলায় ৫০ হাজার তাল বীজ বপন কর্মসূচির উদ্বোধন

পর্যটকদের সর্বোচ্চ সেবা দানে আমরা আন্তরিক। কোথাও অতিরিক্ত হোটেল কক্ষ ভাড়া নেওয়া হচ্ছে কিনা, তা তদারকি করছি। এখনো পর্যন্ত তেমন অভিযোগ পাইনি। আমাদের সংগঠনের কোনো হোটেলের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ পাওয়া গেলে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

টানা ছুটি ও পর্যটন মেলাকে ঘিরে আগত পর্যটকদের নিরাপত্তা ও হয়রানি রোধে সার্বিক ব্যবস্থার কথা জানিয়েছে ট্যুরিস্ট পুলিশসহ প্রশাসনের সংশ্লিষ্টরা।

ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার রিজিয়নের সহকারী পুলিশ সুপার শেহরীন আলম বলেন, পর্যটন দিবস উপলক্ষে চলমান পর্যটনমেলা ও বিচ কার্নিভাল ঘিরে ট্যুরিস্ট পুলিশ আন্তরিকভাবে দায়িত্ব পালন করছে।

আরও পড়ুন: প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে ৭৭ নবজাতককে জামা বিতরণ

বেড়াতে আসা পর্যটকদের সার্বিক নিরাপত্তার ব্যাপারে তারা তংপর রয়েছে। পর্যটন স্পটে কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ পেলে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আগত পর্যটকরা সমুদ্র সৈকতের পাশিপাশি ঘুরে বেড়াচ্ছেন প্রবালদ্বীপ সেন্টমার্টিন, ইনানীর পাথর রাণী সৈকত, হিমছড়ি ঝর্ণা, মহেশখালীর আদিনাথ মন্দির, শহরের বার্মিজ মার্কেট, ডুলাহাজারা সাফারি পার্ক ও রামুর বৌদ্ধ বিহারসহ কক্সবাজারের বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে।

সান নিউজ/এনজে

Copyright © Sunnews24x7
সবচেয়ে
পঠিত
সাম্প্রতিক

সাতক্ষীরায় বইছে প্রচন্ড দমকা হাওয়া

মো. মাজহারুল ইসলাম, সাতক্ষীরা: ব্...

ভালুকায় ভয়ংকর কিশোর গ্যাং!

ভালুকা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি: ময়...

সাবেক ওসির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা 

মো. মাজহারুল ইসলাম, সাতক্ষীরা: ৮...

আইপিএল চ্যাম্পিয়ন কলকাতা

স্পোর্টস ডেস্ক : ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) ফাইনালে স...

শাহরুখের ছোট ছেলের মাসিক খরচ

বিনোদন ডেস্ক: বলিউড বাদশাহ শাহরুখ...

ঠাকুরগাঁওয়ে রেজিয়া হত্যায় গ্রেফতার ২

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি : ঠাকুরগাঁওয়ে হত্যাকান্ডের ২৪ ঘন্টার মধ্...

বিদ্যুৎস্পৃষ্টে ফায়ার সার্ভিস কর্মীর মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক: খাগড়াছড়ির মাটির...

ইটের চাপায় স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যু

জেলা প্রতিনিধি: নরসিংদী জেলা সদরে...

ডায়রিয়ায় উপকারী যেসব পানীয়

লাইফস্টাইল ডেস্ক: ডায়েরিয়ার মতো স...

লাইফস্টাইল
বিনোদন
sunnews24x7 advertisement
খেলা