বিশেষ সংবাদ

বিশেষ সংবাদ

টেকলাইফ

তৃতীয় সাবমেরিন ক্যাবলে যুক্ত হচ্ছে বাংলাদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক:

তৃতীয় সাবমেরিন ক্যাবলের সঙ্গে যুক্ত হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। এটি হলে দ্রুতগতির ব্যান্ডউইথ সেবায় প্রযুক্তির সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলবে দেশ। সরকার আশা করছে, ফাইভ জি বা পঞ্চম প্রজন্মের প্রযুক্তির যুগে অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও প্রবৃদ্ধিতে মাইলফলক হবে এই ক্যাবল।

জানা যায়, আসছে এপ্রিলে আন্তর্জাতিক পর্যায়ের এই সম্মিলিত উদ্যোগে (কনসোর্টিয়াম) যুক্ত হতে চুক্তি করবে সরকার। এতে করে আগামী ২০২৩ সালের জুন থেকে সাবমেরিনের মূল ক্যাবলের সুবিধা পাবে বাংলাদেশ। আর ২০৩০ সাল পর্যন্ত ইন্টারনেটের চাহিদা মিটবে।

ইতোমধ্যে নতুন সাবমেরিন ক্যাবলের জন্য গঠিত সি-মি-উই ৬ কনসোর্টিয়ামের সদস্য হয়েছে বাংলাদেশ। সিঙ্গাপুর ও শ্রীলংকার মধ্যবর্তী স্থানে সি-মি-উই ৬ কনসোর্টিয়ামে যুক্ত হবে এই ক্যাবল। কনসোর্টিয়ামের মাধ্যমে কক্সবাজার থেকে সিঙ্গাপুরের দিকে ও কক্সবাজার হতে ফ্রান্সের দিকে ৫ টেরাবাইট করে মোট ১০ টেরাবাইট ব্যান্ডউইথ ইন্টারনেট পাবে বাংলাদেশ। এতে যুক্ত হতে কক্সবাজার ল্যান্ডিং স্টেশন থেকে গভীর সমুদ্রের মূল লাইনের দূরত্ব হবে এক হাজার ৮৫০ কিলোমিটার। এ সংযোগের জন্য খরচ হবে ৬৯০ কোটি টাকা। যার ৮৯ শতাংশ খরচ হবে শুধু ক্যাবল বাবদ।

এ প্রসঙ্গে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, আমরা এখন ফাইভ-জি প্রযুক্তির যুগে আছি। কিন্তু এখনও নিম্নমানের ব্রডব্যান্ড ব্যবহার করছি। এই বাস্তবতায় প্রযুক্তির উন্নয়ন ও অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে মাইল ফলক হয়ে আসবে তৃতীয় সাবমেরিন ক্যাবল। বাংলাদেশ প্রযুক্তিগত উন্নয়ন করেছে। এই নতুন সাবমেরিন ক্যাবল দীর্ঘমেয়াদি ইন্টারনেটের চাহিদা মেটাবে।

সি-মি-উই ৬ কনসোর্টিয়ামে সিঙ্গাপুর-ফ্রান্স সংযোগের ক্যাবল দূরত্ব ২০ হাজার কিলোমিটার। এই ক্যাবলটিতে বাংলাদেশ ছাড়াও ১৬টি দেশ সংযুক্ত হবে। এরমধ্যে চীন থেকেই যুক্ত হবে ৩টি কোম্পানি। ল্যান্ডিং স্টেশন থাকবে ২০টি। গত বছর ১৪ সেপ্টেম্বর এই কনসোর্টিয়ামে যোগ দিয়েছে বাংলাদেশ। সিঙ্গাপুর-ফ্রান্স পর্যন্ত সি-মি-উই ৬ এর যে মূল রুট হবে সেটি বাংলাদেশ হতে ১৮৫০ কিলোমিটার দূর দিয়ে যাবে। এই দূরত্বই হচ্ছে বাংলাদেশের নিজেদের রুট। আর নিজেদের রুটের ক্যাবল বসানোর পুরো খরচ বহন করবে বাংলাদেশ। সি-মি-উই ৬ কনসোর্টিয়ামের সদস্যরা যৌথভাবে শুধু মূল লাইনের খরচ বহন করবে।

বর্তমানে দেশে এক হাজার ৪০০ জিবিপিএস (গিগাবিটস পার সেকেন্ড) ব্যান্ডউইথ ব্যবহার হচ্ছে। এর মধ্যে দেশের প্রথম ও দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবল দিয়ে আসছে ৮০০ জিবিপিএস আর টেরিস্ট্রিয়াল ক্যাবলের মাধ্যমে ভারত থেকে আসছে ৬০০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ। যদিও দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবলের সক্ষমতা এক হাজার ৫০০ জিবিপিএস।

উল্লেখ্য, ২০০৬ সালে বাংলাদেশ প্রথমবারের মতো সাবমেরিন ক্যাবল আন্তর্জাতিক কনসোর্টিয়ামে ‘সি-মি-উই-৪’ এ যুক্ত হয়। আনুষ্ঠানিকভাবে দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবল সি-মি-উই-৫ চালু হয় ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে।

Copyright © Sunnews24x7
সবচেয়ে
পঠিত
সাম্প্রতিক

আইভির মাথায় শামীমের হাত

নিজস্ব প্রতিবেদক: নারায়ণগঞ্জ সিটি...

আড়াইশ ছাড়ালো করোনায় মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক: গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও...

টিকা দেশেই উৎপাদন হবে : প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনার ভ্যাকসিন...

আবারো মা হচ্ছেন ঐশ্বরিয়া

বিনোদন ডেস্ক : আবারো মা হচ্ছেন বল...

তামান্না'র সম্মানী ৭৫ লাখ রুপি

বিনোদন ডেস্ক : জনপ্রিয় সাউথ ইন্ডি...

ঢাকাগামী বাস ৪৫ যাত্রীসহ আটক

নীলফামারী প্রতিনিধি: করোনা সংক্রমণ রোধে চলমান কঠোর...

ওবায়দুল কাদের ও কাদের মির্জার সাক্ষাত

নিজস্ব প্রতিবেদক: বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের...

৪২তম বিসিএসে নিয়োগ পাচ্ছে আরও ২ হাজার চিকিৎসক

নিজস্ব প্রতিনিধি: সরকার করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলা...

খাদ্য-পুষ্টিতে সরকারের বিশেষ গুরুত্ব

সাননিউজ ডেস্ক: কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধি ও খাদ্য ব্যবস্থা...

অধ্যাপক আলী আশরাফের অবস্থা সঙ্কটাপন্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক: কুমিল্লা-৭ আসনের আওয়ামী লীগের সং...

লাইফস্টাইল
বিনোদন
sunnews24x7 advertisement
খেলা