জাতীয়
ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন

সব বিতর্ক পেছনে ফেলে চলছে ভোটের লড়াই

সান নিউজ ডেস্ক:

সব বিতর্ককে পেছনে ফেলে চলছে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। সকাল ৮টা শুরু হয় ভোট, চলবে টানা বিকেল ৪টা পর্যন্ত। প্রথমবারের মতো ব্যালটে সিলমারাবিহীন পুরো একটি নির্বাচন হতে যাচ্ছে।

প্রধান দুই রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপির প্রার্থীরা সমানতালে প্রচার চালিয়েছেন। আচরণবিধি লঙঘনের বিষয়ে দুই দলের পক্ষ থেকে পাল্ব্যাটাপাল্পটি শতাধিক অভিযোগ নির্বাচন কমিশনে জানানো হলেও কার্যত কারোর বিরুদ্ধেই তেমন কোন ধরণের ব্যবস্থা নেয়নি ইসি।

ইভিএম-এ (ইলেক্টোনিক ভোটিং মেশিন) ভোট গ্রহণ নিয়ে শুরু থেকে প্রশ্ন তুলে আসছে বিএনপিসহ ৩৫ টি রাজনৈতিক দল এবং নির্বাচন বিশ্লেষকরা। এর সঙ্গে নির্বাচনে বিতর্কের সৃষ্টি করে বিদেশী কুটনীতিকরা বেশ কিছু বিষয়ে।

তবে অন্যান্য নির্বাচনের তুলায় এবার ব্যাপক ধরপাকড় কিংবা হামলার অভিযোগ ছিল কম। বিএনপির দুই মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল ও ইশরাক হোসেনের গণসংযোগে হামলার ঘটনা ছাড়া বিএনপি থেকেও বড় কোনো অভিযোগ ছিল না। দুই দলের কর্মীদের মধ্যেই উৎসবের আমেজ ছিল। বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুলও বলেছেন, এবারের নির্বাচনে তাঁদের বড় পাওয়া সবাইকে নিয়ে রাস্তায় বের হতে পারা। প্রধান চার প্রতিদ্বন্দ্বী আতিকুল ইসলাম, তাবিথ আউয়াল, শেখ ফজলে নূর তাপস, ইশরাক হোসেন তাঁদের প্রচারে অকপটে স্বীকার করেছেন, ঢাকার অবস্থা খুব ভালো নয়। তাঁরা ঢাকাকে বাঁচাতে চান। এ ছাড়া গত বছরের ডেঙ্গু রোগের ভয়াবহতা নিয়ে চারজনই কথা বলেছেন।

দুই সিটিতে ১৩জন মেয়র প্রার্থীসহ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন সাড়ে সাতশ জন প্রার্থী।

নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় দায়িত্বে রয়েছেন ১২৯ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। মাঠে আছে ৬৫ প্লাটুন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ- বিজিবি। ভোটের পরদিনও নির্বাচনী মাঠে থাকবে বিজিবি।

এছাড়া দুই সিটিতে রিজার্ভ ফোর্স হিসেবে আরও রয়েছে ৫ প্লাটুন করে মোট ১০ প্লাটুন বিজিবি সদস্য। তাদের পাশাপাশি মাঠে আছে পুলিশ ও র‌্যাব সদস্যরা। মোবাইল ও স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে টহল দিচ্ছেন তারা।

এছাড়া সাধারণ কেন্দ্রে ১৬ জন করে ও গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রে ১৮ জন করে পুলিশ, বিজিবি, আনসার ও ভিডিপি সদস্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিত রয়েছে।

এবার ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে মোট সাধারণ ওয়ার্ড সংখ্যা ৫৪টি ও সংরক্ষিত ওয়ার্ড ১৮টি। মোট ভোটার সংখ্যা ৩০ লাখ ১০ হাজার ২৭৩ জন। ভোটকেন্দ্র রয়েছে ১ হাজার ৩১৮টি এবং ভোট কক্ষের সংখ্যা ৭ হাজার ৮৪৬টি।

অপর দিকে দক্ষিণ সিটিতে সাধারণ ওয়ার্ড ৭৫টি ও সংরক্ষিত ওয়ার্ড ২৫টি। মোট ভোটার সংখ্যা ২৪ লাখ ৫৩ হাজার ১৯৪ জন। ভোটকেন্দ্র ১ হাজার ১৫০টি এবং ভোটকক্ষ রয়েছে ৫ হাজার ৫৮৮টি। দক্ষিণের রির্টানিং কর্মকর্তা জানান, এর মধ্যে ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র রয়েছে ৭২১টি

নির্বাচন কমিশন সেূত্রে জানা গেছে, দুই সিটিতে মোট ২ হাজার ৪৬৮টি কেন্দ্রে ২৮ হাজার ৮৭৮টি ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন– ইভিএমে ভোট নেয়া হচ্ছে। এছাড়া প্রয়োজনের তুলনায় আরও ৫০ শতাংশ বেশি ইভিএম প্রস্তুত রাখা হয়েছে। নির্বাচন পরিচালনা করছেন ৪৫ হাজার ৭৭০ জন প্রিজাইডিং ও পোলিং এজেন্ট।

ইভিএম বিতর্কে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) বলেন, নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু করতে সব ধরনের পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। ইভিএম-এ ভোট জালিয়াতির কোন সুয়োগ নেই। তিনি আরও বলেন, নির্বাচন কমিশনের প্রতি বিরোধী দলের কখনোই আস্থা ছিল না। এটি মানসিকতার ব্যাপার।

তবে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণ নিয়ে দুটি সুনির্দিষ্ট দুর্বলতার কথা বলেছে বেসরকারি সংগঠন সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন)। গণমাধ্যমে পাঠানো এক ভিডিও বার্তায় সুজন সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার বলেন, একটি দুর্বলতা হলো, ভোটার ভেরিফাইয়েবল পেপার লোডেড ট্রেইল নেই। যেটা ভারতের সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে সেখানকার ইভিএমে সংযুক্ত হয়েছে। এর মাধ্যমে ভোটার কাকে ভোট দিলেন তা নির্ধারণ করা যায়। আমরা যে ইভিএম ব্যবহার করছি সেই ইভিএমে নির্বাচন কমিশন যা বলবে তাই মেনে নিতে হবে।

আরেকটি দুর্বলতা হলো, আঙুলের ছাপ। এর মাধ্যেমে ভোটারদের শনাক্ত করা হয়। অনেকের আঙুলের ছাপ ইভিএম পড়তে পারে না। তাই কর্মকর্তাদের এই ইভিএমকে ওভাররাইট করার ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে।

বিদেশি ১০টি দূতাবাসের বিভিন্ন পদে কর্মরত ২৮ জন বাংলাদেশি দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিদেশি পর্যবেক্ষক হিসেবে ভোট পর্যবেক্ষণের অনুমতি পেয়েছে। তবে এ বিষয়কে আইনের লঙ্ঘন হয়েছে বলে মন্তব্য করেছন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, বাংলাদেশের নাগরিকরা বিদেশি হিসেবে ভোট পর্যবেক্ষণে কোনোভাবেই কেন্দ্রে প্রবেশে অনুমতি পেতে পারে না।

নির্বাচনে মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হচ্ছে ক্ষমতাসনি আওয়ামী লীগ ও বিএনপি প্রার্থীর মধ্যে। হামলা, সংঘর্ষ ও একে অপরের বিরুদ্ধে অভিযোগে উত্তপ্ত ছিলো নির্বাচনী প্রচার।

দুই সিটিতে এবার তুরুণ ভোটার সংখ্যা প্রায় ২৬ লাখ। এদের মধ্যে নতুন ভোটর সাড়ে ১২ লাখ। তরুণ ভোটার মোট ভোটারের প্রায় অর্ধেক। নির্বাচন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আজকের নির্বাচনে জয় পরাজয়ের প্রধান নিয়ামক হবে এই তরুণ ভোটাররাই।

Copyright © Sunnews24x7
সবচেয়ে
পঠিত
সাম্প্রতিক

বিদ্যুৎ নেই রাজধানীসহ দেশের অধিকাংশ এলাকায়

সান নিউজ ডেস্ক : জাতীয় গ্রিডের একটি সঞ্চালন লাইনে বিভ্রাট দে...

চিকিৎসায় নোবেল পেলেন সুভান্তে প্যাবো

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: চলতি বছরের চিকিৎসাশাস্ত্রে নোবেল পুরস্কার...

তাইওয়ানে হামলা করবে না চীন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: মার্কিন প্রতির...

মাইন বিস্ফোরণে রোহিঙ্গা কিশোর নিহত

সান নিউজ ডেস্ক: বান্দরবানের নাইক্...

শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশের গুলি

সান নিউজ ডেস্ক: ইরানের রাজধানী তে...

আফ্রিকায় বিস্ফোরণে ৪ বাংলাদেশি শান্তিরক্ষী আহত

সান নিউজ ডেস্ক: মধ্য আফ্রিকা প্রজাতন্ত্রে জাতিসংঘের তত্ত্বাব...

জেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ বিদ্যোৎসাহী সাংবাদিক ফারুক

আমিরুল হক,স্টাফ রিপোর্টার : জাতীয়...

সন্ধ্যার পর বিদ্যুৎ স্বাভাবিক হবে

সান নিউজ ডেস্ক: জাতীয় গ্রিডের সঞ্চালন লাইনে বিপর্যয়ের কারণে...

ইমরান খান পৃথিবীর সবচেয়ে বড় মিথ্যাবাদী

সান নিউজ ডেস্ক: পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধী রাজ...

সৈয়দপুরে কিশোরের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

আমিরুল হক, স্টাফ রিপোর্টার : নীলফ...

লাইফস্টাইল
বিনোদন
sunnews24x7 advertisement
খেলা