ছবি: সংগৃহীত
পরিবেশ

কলম্বিয়ায় বন উজাড় বেড়েছে ৪০ শতাংশ 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: সম্প্রতি আমাজন বনের কলম্বিয়া অংশে উজাড় বাড়ছে। মূলত সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলো সরকারের সাথে শান্তি আলোচনার জন্য আমাজন রেইন ফরেস্টকে দর কষাকষির অস্ত্র হিসাবে ব্যবহার করছে।

আরও পড়ুন: মিয়ানমারে আরো এক ঘাঁটি বিদ্রোহীদের দখলে

দেশটির পরিবেশমন্ত্রী সুসানা মুহাম্মাদ জানিয়েছেন, প্রাথমিক তথ্য অনুযায়ী সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলো রেইন ফরেস্টের ওপর নিয়ন্ত্রণ জোরদার করায় ২০২৩ সালের তুলনায় এ বছরের প্রথম ৩ মাসে এ অঞ্চলে বন উজাড় ৪০ শতাংশ বেড়েছে।

বোগোতায় এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, আমরা বন উজাড়ের একটি ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা দেখতে পাচ্ছি, যা বেশ উদ্বেগজনক।

এর ২টি প্রধান কারণ হলো প্রথমটি হচ্ছে- ওই এলাকায় সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলোর অত্যন্ত বলপ্রয়োগ ও দ্বিতীয়টি স্পষ্টতই অগ্নিকাণ্ড, অনুকূল পরিস্থিতি যা জলবায়ুর সাথে সম্পর্কিত।

কলম্বিয়ার ইতিহাসে প্রথম বামপন্থী প্রশাসন গুস্তাভো পেত্রোর সরকার সশস্ত্র বিদ্রোহীদের সাথে আলোচনার মাধ্যমে দ্রুত পরিবর্তন এনেছেন।

দেশটির পরিবেশ মন্ত্রণালয় বলছে, ২০২১-২০২২ সালের মধ্যে কলম্বিয়াজুড়ে বন উজাড় ২৯ শতাংশ কমে ২০১৩ সালের পর সর্বনিম্ন পর্যায়ে পৌঁছেছে।

প্রাথমিক তথ্যমতে, ২০২৩ সালে এটি আরও ২৫-৩৫ শতাংশ কমেছে। তবে সাম্প্রতিক সময়ে সেই প্রবণতার অবসান ঘটেছে।

আরও পড়ুন: পাকিস্তানের ট্রাক খাদে পড়ে নিহত ১৭

বন উজাড় কমে আসা মূলত এস্তাদো মেয়র সেন্ট্রালের (ইএমসি) আদেশের কারণে হয়েছিল। ভিন্নমতাবলম্বী বিদ্রোহীদের গ্রুপ যারা দক্ষিণ কলম্বিয়ার বিস্তীর্ণ বনাঞ্চলে আধিপত্য বিস্তার করেছিল, ইএমসি পেট্রো সরকারের সাথে আলোচনায় ২০২২ সালে বন উজাড় নিষিদ্ধ হয়।

কলম্বিয়ার আমাজনে বন উজাড় আগের বছরের তুলনায় ২০২৩ সালের শেষ ৩ মাসে ৪১ শতাংশ বেশি হয়ে যায়, যা ১৮৪০০ হেক্টরে পৌঁছেছে। উদ্বেগজনক এ প্রবণতা এ বছরও অব্যাহত রয়েছে।

সরকারি প্রাথমিক পরিসংখ্যান দেখায়, ২০২৪ সালের প্রথম ৩ মাসে ৪০ শতাংশ বেশি বনভূমি কমে এসেছে।

সুসানা মুহাম্মাদ বলেন, আমরা আশঙ্কা করেছিলাম, বন উজাড় বাড়বে। তবে যে মাত্রায় বাড়ছে, সেটা আমাদের আশঙ্কারও বাইরে। এটা অত্যন্ত উদ্বেগজনক।

ভূমি ব্যবস্থাপনা নিয়ে কাজ করা বেসরকারি সংস্থা ফাউন্ডেশন ফর কনজারভেশন অ্যান্ড সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট (এফসিডিএস)-এর পরিচালক রদ্রিগো বোটেরো জানান, গত ৬ বছরে আমরা ৫ মিলিয়ন হেক্টরেরও বেশি বনভূমি হারিয়েছি।

আরও পড়ুন: যুক্তরাষ্ট্রে গুলিতে আহত ৩

আমরা এমন এক পর্যায়ে রয়েছি, পূর্বের অবস্থায় আর ফেরা হবে না। বিশেষ করে বিশ্বের সবচেয়ে দুর্গম, জীববৈচিত্র্যময় ও নাজুক বাস্তুতন্ত্রে গবাদি পশু চাষ এবং কোকা উৎপাদন আশঙ্কাজনক।

তারা গায়ানা শিল্ডের মতো অঞ্চলে পৌঁছেছে, যা জীববৈচিত্র্যের দিক থেকে অসীমভাবে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এ ক্ষতি পুনরুদ্ধার করতে কয়েক শতাব্দী সময় লেগে যাবে।

উল্লেখ্য, সাম্প্রতিক মাসগুলোতে কলম্বিয়ায় আমাজন বনাঞ্চলে সশস্ত্র বিদ্রোহীরা স্থানীয় লোকজনকে বাস্তুচ্যুত করেছে, পরিবেশবাদীদের হত্যা করেছে এবং ওই অঞ্চল থেকে সরকারি কর্মকর্তাদেরও তাড়িয়ে দিয়েছে।

বন রক্ষার উদ্দেশ্যে ইকোট্যুরিজম উদ্যোগ ও বন সংরক্ষণকারী কৃষকদের জন্য অর্থ প্রদানের প্রকল্পগুলো বন্ধ করতে বাধ্য করেছে সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলো।

সুসানা মুহাম্মদ আরও বলেন, প্রকৃতিকে সংঘাতের মাঝখানে দাঁড় করানো হচ্ছে। দক্ষিণ আমেরিকা এ বছর চরম খরা ও রেকর্ড তাপমাত্রার সম্মুখীন হয়েছে। সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান, রয়টার্স

সান নিউজ/এনজে

Copyright © Sunnews24x7
সবচেয়ে
পঠিত
সাম্প্রতিক

প্রস্তুতি ম্যাচের সূচি প্রকাশ

স্পোর্টস ডেস্ক : আসন্ন আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মূল আস...

টিভিতে আজকের খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক: প্রতিদিনের মতো আজ শনিবার (১৮মে) বেশ কিছু খেল...

কর্মস্থলে না এসেও বেতন তোলেন শিক্ষক

আবু রাসেল সুমন, খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:

মুন্সীগঞ্জে ভাসমান মরদেহ উদ্ধার

মো. নাজির হোসেন, মুন্সীগঞ্জ : মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার মধ্য কোটগাঁ...

মেঘনা নদীতে পাঙ্গাশ রক্ষায় অবৈধ চাই ধ্বংস 

ভোলা প্রতিনিধি: ভোলায় মেঘনা নদী থ...

ওএমএস বিতরণে গাফলতি হলে ব্যবস্থা

নিজস্ব প্রতিবেদক: খাদ্যমন্ত্রী সা...

পটল কেন উপকারী?

লাইফস্টাইল ডেস্ক: পটল আমাদের দেশের পরিচিত একটি সবজি, যা খেতে...

মিডিয়া ট্রায়াল বন্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে

জেলা প্রতিনিধি: বিচারের আগে মিডিয...

হোয়াটসঅ্যাপে আসছে পরিবর্তন

টেকলাইফ ডেস্ক: জনপ্রিয় যোগাযোগ মা...

মঙ্গলবার ১৫৭ উপজেলায় সাধারণ ছুটি 

নিজস্ব প্রতিবেদক: ষষ্ঠ উপজেলা পরি...

লাইফস্টাইল
বিনোদন
sunnews24x7 advertisement
খেলা