স্বাস্থ্য

দেশীয় খাবারেই করোনা মোকাবিলার শক্তি

নিউজ ডেস্ক:

বিশ্বজুড়ে করোনা ব্যাপক তাণ্ডব চালাচ্ছে। মিলিয়ন ডলারের গবেষণায় ভ্যাক্সিন আবিষ্কার না করতে পারলেও, বিশেষজ্ঞরা বলছেন শরীরের ইমিউন সিস্টেম বা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিই হতে পারে সব থেকে বড় হাতিয়ার। ইউনিসেফের তথ্য অনুযায়ী ইমিউন সিস্টেম বাড়িয়ে করোনাভাইরাসের সংক্রমণের যে মারাত্মক লক্ষণ অর্থাৎ রেসপিরেটরি এবং গ্যাস্ট্রোইনটেসটিন্যাল সংক্রমণের ঝুঁকি প্রতিরোধ করা যায়।

ভাইরাসের কারণে জ্বর, কাশি, শ্বাসকষ্টের মত এমনকি মারাত্মক নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হতে পারে, বিশেষ করে করোনাভাইরাসের সংক্রমণে। এই ভাইরাসটি আমাদের শরীরের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা কমিয়ে দেয়, তাই শরীরের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য বেশি পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ খাবার প্রতিদিন খেতে হবে।

অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হলো কিছু ভিটামিন, খনিজ ও এনজাইম, যা শরীরের কোষগুলোকে ক্ষতির হাত থেকে বাঁচিয়ে, শরীরে জীবাণু সংক্রমণের ঝুঁকি প্রতিরোধ করতে সহায়তা করে।

তাই নিয়মিত একটি পরিপূর্ণ খাদ্যাভ্যাসই পারে আমাদের দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে এই ভাইরাসের সাথে লড়াই করতে। আমাদের হাতের কাছে যে সকল খাবারগুলো পাওয়া যায় তাই দিয়েই করা যায় এই স্বাস্থ্যচর্চা। চলুন জেনে নেই কি কি খাবার আমাদের দেহের ইমিউন সিস্টেম বা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে।

ভিটামিন-এ, সি, ই, বিটা-ক্যারোটিন, লাইকোপেন, লুটেইন সেলেনিয়াম হচ্ছে মূল ৫ টি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। যেসব দেশীয় খাবারে এটি পাওয়া যায়ঃ
ফলঃ কমলালেবু, আম, আনার, জলপাই, আনারস, আঙুর, পেঁপে, তরমুজ ইত্যাদি।

শাকঃ পালংশাক এবং অন্যান্য সবুজ শাক।

সবজিঃ লেবু, লাল বাঁধাকপি, ফুলকপি, ব্রকোলি, বিট, গাজর, টমেটো, করলা, মিষ্টি আলু, ক্যাপসিকাম ইত্যাদি ।

মসলাঃ আদা, রসুন, হলুদ, গোলমরিচ, দারুচিনি ইত্যাদি।

দানাদার খাবারঃ মটরশুঁটি, সিমের বিচি, চিনাবাদাম, বার্লি, ওটস, লাল চাল ইত্যাদি।

টক দইঃ এটি শ্বাসযন্ত্র ও গ্যাস্ট্রোইনটেসটিন্যাল সংক্রমণের ঝুঁকি প্রতিরোধ করে। অন্য দিকে শাক-সবজি, ফল, বাদামজাতীয় খাবার শরীরে নিউটোভ্যাক্স
ভ্যাকসিনের অ্যান্টিবডি প্রক্রিয়াকে আরো কার্যকরী করে, যা নিউমোনিয়া প্রতিরোধে সাহায্য করে।

চা: গ্রিন টি ও ব্ল্যাক টিতে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে, যা আমাদের শরীরে জীবাণু প্রতিরোধ করে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

কিছু কিছু খাবার পরিহার করতে হবে:

আইসক্রিম, চিনি ও চিনির তৈরি খাবার ভাইরাসের সংক্রমণে সহায়তা করে। তামাক, সাদাপাতা, খয়ের, কার্বনেটেড ড্রিংকস প্রতিরোধ ক্ষমতায় বাধা দিয়ে ফুসফুসের সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়ায়।

এছাড়াও স্বল্প পরিমাণের ঘুম শরীরে কর্টিসল হরমোনের চাপ বাড়িয়ে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমিয়ে দেয়, তাই পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমাতে হবে। ফল, লেবু, সালাদ ইত্যাদি তাজা অবস্থায় সরাসরি খাওয়া ভালো। অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের সবচেয়ে ভালো উৎস হল উদ্ভিজ্জ খাবার। বিশেষ করে বেগুনি, নীল, কমলা,ও হলুদ রঙের শাক-সবজি।

Copyright © Sunnews24x7
সবচেয়ে
পঠিত
সাম্প্রতিক

নাটোর জেলা সমিতি, ঢাকার নতুন কমিটির দায়িত্ব গ্রহণ

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানী ঢাকায় ব...

সফলতার সূত্র শেখালেন পূর্ণিমা

বিনোদন ডেস্ক: ঢালিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী পূর্ণিমা। সেই নব্বই...

শ্রীলেখার উপদেশ

বিনোদন ডেস্ক: টালিউডের লাস্যময়ী অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র। ব...

টিভিতে আজকের খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক: আজ রোববার (৫ ডিসেম্বর) টিভিতে বেশ কিছু খেলা...

সৌদি আরবে স্বামীকে মাহির উষ্ণ চুম্বন

বিনোদন ডেস্ক: সৌদি আরবের পবিত্র ম...

বিজয় দিবসের প্যারেড থাকবেন রামনাথ কোভিন্দ

নিজস্ব প্রতিবেদক: আগামী ১৫ ডিসেম্বর স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তি...

তলাবিহীন ঝুড়ি থেকে ঝুড়ি উপচে পড়া দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক: তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী মোহাম্মদ হাছান মাহ...

আফগানিস্তানে খোলা আকাশের নিচে হাজারো ক্ষুধার্ত মানুষ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে খোলা আকাশের...

বৃষ্টিতে দুর্ভোগে কর্মজীবী মানুষেরা

জাহিদ রাকিব: বৃষ্টি কারো কাছে বিলাসিতা আর কারও কাছে অস্বস্ত...

বিশ্বজুড়ে ২৩ কোটি ৯৮ লাখ সুস্থ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: বিশ্বজুড়ে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের তাণ্ডব...

লাইফস্টাইল
বিনোদন
sunnews24x7 advertisement
খেলা