বিশেষ সংবাদ

বিশেষ সংবাদ

অপরাধ

ইয়াবা পাচারের নিয়ন্ত্রণ নিচ্ছে রোহিঙ্গারা

মইনুল হাসান পলাশ, কক্সবাজার:
রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোকে ঘিরে অস্থির হয়ে উঠছে কক্সবাজার। বাংলাদেশে আশ্রিত রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে সক্রিয় রয়েছে কয়েকটি সশস্ত্র জঙ্গি গোষ্ঠি, এমন খবর প্রায়ই উঠে আসছে দেশি-বিদেশি গণমাধ্যমগুলোতে। অস্ত্র এবং মাদক ব্যবসা, চাঁদাবাজি, ডাকাতি, মানব পাচারসহ নানাবিধ অপরাধমূলক কর্মকান্ডের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েছে রোহিঙ্গাদের একটি বিশেষ অংশ। বিশেষ করে মিয়ানমারে থেকে আসা ইয়াবা ব্যবসার স্বর্গরাজ্যে পরিণত করা হয়েছে বাংলাদেশকে, যার নিয়ন্ত্রণ এখন বলতে গেলে রোহিঙ্গাদের একটি অপরাধী চক্রের হাতেই।

আলোচিত মাদক ইয়াবা পাচারে দলে দলে জড়িয়ে পড়ছে রোহিঙ্গাদের একটি বিশেষ অংশ। যতোই সময় যাচ্ছে টেকনাফ-নাইক্ষ্যংছড়িতে সীমান্তকেন্দ্রিক ইয়াবা পাচারের নিয়ন্ত্রণ চলে যাচ্ছে রোহিঙ্গাদের হাতে।

হাজার হাজার রোহিঙ্গা যুবক এখন বেপরোয়া হয়ে ইয়াবা পাচার করছে। যা নিয়ে উদ্বিগ্ন সংশ্লিষ্ট সরকারী সংস্থাগুলো। গত দু’বছরে কথিত ক্রসফায়ারে অন্ততঃ ৩৫ রোহিঙ্গা নিহত হয়েছে। এর মধ্যে ইয়াবাসহ আটক হওয়া বেশ কিছু রোহিঙ্গাও রয়েছেন।

একটি সূত্র জানিয়েছে,টেকনাফের নয়াপাড়া ক্যাম্প নিকটবর্তী পাহাড়ী এলাকায় অবস্থানরত কিছু বেপরোয়া রোহিঙ্গা এখনো নিয়মিত যোগাযোগ রাখছে মিয়ানমারের ইয়াবা পাচারকারীদের সাথে। এদিকে, উখিয়ার কুতুপালং হতে বালুখালী পর্যন্ত মোট ১২টি ক্যাম্প অভ্যন্তরীনভাবে এক সাথে যুক্ত। ফলে অনায়াসে এক ক্যাম্পের রোহিঙ্গা অন্য ক্যাম্পে অবাধে যাতায়াত করতে পারে। অনেক ক্ষেত্রে রিলে পদ্ধতিতে এক ক্যাম্প থেকে অন্য ক্যাম্পে হাত বদল করে ইয়াবা নিয়ে আসছে রোহিঙ্গারা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে,ইয়াবা পাচারের জন্য রোহিঙ্গা যুবকের কমিটি করে। ক্যাম্পভিত্তিক প্রতিটি ব্লকে ১০/১২জন যুবক নিয়ে ইয়াবা পাচারের কমিটি আছে। এভাবে একটি ক্যাম্পে অন্ততঃ ৫০জন রোহিঙ্গা যুবক সরাসরি ইয়াবা পাচারের দায়িত্বে থাকে।
কক্সবাজার-টেকনাফ রোডে ইয়াবা পাচার ঠেকাতে পুলিশ, বিজিবি ও সেনা চেকপোস্ট রয়েছে। রোহিঙ্গারা এইসব চেকপোস্ট এড়াতে বিভিন্ন ক্যাম্পের ভেতর অভ্যন্তরীন চলাচলের রাস্তা দিয়ে সরাসরি কক্সবাজার শহরে চলে আসে। অনেকক্ষেত্রে সাগরের সৈকত ঘেষে পায়ে হেঁটেও কক্সবাজার শহরে চলে আসে।

॥ রোহিঙ্গাদের ইয়াবা পাচারের বিভিন্ন রুট ॥
কক্সবাজার-টেকনাফ রোডে সবচেয়ে বড় এবং গুরুত্বপূর্ণ চেকপোস্টটি হলো উখিয়া কলেজ সংলগ্ন সেনাবাহিনীর চেকপোস্ট। এই চেকপোস্ট এড়াতে ইয়াবা বহনকারী রোহিঙ্গারা বিভিন্ন ক্যাম্পের আভ্যন্তরীন চলাচলের পথ ব্যবহার করে উখিয়া স্টেশনে আসে কবরস্থানের পাশের রাস্তা দিয়ে। রাস্তাটা উখিয়া হাইস্কুলের সামনে কক্সবাজার-টেকনাফ রোডে এসে যুক্ত হয়েছে। সেখান থেকে কোটবাজার হয়ে মেরিন ড্রাইভ রোডে আসার আভ্যন্তরীন সড়কের সোনার পাড়ায় আসে। এখানে এসে রোহিঙ্গারা হাত বদল করে স্থানীয় পাচারকারী চক্রের কাছে ইয়াবার চালান পৌঁছে দেয়। কিছু ক্ষেত্রে রোহিঙ্গারা মেরিন ড্রাইভ হতে সরাসরি সৈকতে নেমে যায় এবং সাগরপাড় ধরে কক্সবাজার শহরে পৌঁছায়। এটিই মূলতঃ রোহিঙ্গাদের ইয়াবার চালান বহন করার নিরাপদ রুট।

বালুখালীর ক্যাম্প-১১ এর সামনে পুলিশ ও আনসারের একটি চেকপোস্ট রয়েছে। যেহেতু পুরো এলাকাটি রোহিঙ্গা অধ্যুষিত, তাই ইয়াবা বহনকারী রোহিঙ্গাদের আলাদা করে সনাক্ত করা সহজ নয়।
এছাড়া ক্যাম্প-৫ সংলগ্ন একটি চৌরাস্তার মোড় আছে। যেখান থেকে চারদিকে অনায়াসে চলাচল করা যায়।

জানা গেছে, মাস ছয়েক আগে সরকার রোহিঙ্গাদের মোবাইল ফোন ব্যবহারের ওপর কড়াকড়ি আরোপ করে। একইসাথে বাংলাদেশী সিম ব্যবহার নিষিদ্ধ করে মোবাইল ফোন অপারেটরদের কঠোর নির্দেশনা দেয়।
এর প্রেক্ষিতে রোহিঙ্গারা বর্তমানে তাদের মোবাইল ফোনে মিয়ানমারের সিম ব্যবহার করছে নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ রক্ষা করার জন্য। উখিয়ার থাইংখালী পর্যন্ত মিয়ানমারের সিমের নেটওয়ার্ক কাভারেজ থাকে বলে জানিয়েছে সূত্রগুলো। ইয়াবা পাচারকারী রোহিঙ্গারা এই এলাকা পর্যন্ত ইয়াবা পাচার সহজ করতে মিয়ানমারের সিমের নেটওয়ার্ক কাভারেজ দিয়ে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ রক্ষা করে।

Copyright © Sunnews24x7
সবচেয়ে
পঠিত
সাম্প্রতিক

গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে শেখ হাসিনার দেশে ফিরে আসার দিন আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক : আজ ৭ মে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে শেখ হাসিনা&r...

করোনায় বিশ্বে ৩২ লাখ ৬৯ হাজার মৃত্যু

সান নিউজ ডেস্ক : মহামারি করোনাভাইরাসের তাণ্ডবে কাবু বিশ্ববাস...

করোনাভাইরাস: আরও ৩৭ মৃত্যু

সাননিউজ ডেস্ক: বিশ্বব্যাপী তাণ্ডব...

যমুনায় ডুবে শিশুর মৃত্যু 

রেজাউল করিম, সিরাজগঞ্জ: সিরাজগঞ্জে যমুনা নদীতে ডুবে ইব্রাহীম...

বাস উল্টে স্কুল শিক্ষকের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিনিধি, নটোর: নাটোরে সড়...

অতপর কঙ্গনারও...

বিনোদন ডেস্ক : করোনা আক্রান্ত কঙ্...

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে চলছে দূরপাল্লার বাস

নিজস্ব প্রতিনিধি, টাঙ্গাইল : নি...

ঈদের আগে ব্যাংক খোলা দুই দিন

নিজস্ব প্রতিবেদক : পবিত্র ঈদ-উল...

লাইফস্টাইল
বিনোদন
sunnews24x7 advertisement
খেলা