পরিবেশ

ভাসমান শহর নির্মাণের চেষ্টায় জাতিসংঘ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

জলবায়ুর পরিবর্তননে বাড়ছে পৃথিবীর উষ্ণতা, ফলে দ্রুত গলে যাচ্ছে দুই মেরুর বরফ।

যার কারণে সমুদ্র পৃষ্ঠের উচ্চতাও বাড়ছে দিনকে দিন। পুরো বিশ্বের উপকূলীয় অঞ্চলের আবাসগুলোর অস্তিত্বকেই সংকটে ফেলছে এমন প্রবণতা।

তাই উপকূলবাসীর নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে ভাসমান শহরের রূপরেখা তৈরি করেছেন জাতিসংঘের তত্ত্বাবধানে একদল বিজ্ঞানী। বর্তমানে এই পরিকল্পনা নকশা আকারে থাকলেও আগামী এক দশকে তা বাস্তবে পরিণত হবে বলে জানাচ্ছেন জাতিসংঘ বিশেষজ্ঞরা।

সম্প্রতি এমন আশার বাণীই শুনিয়েছেন তারা। তবে এখন পর্যন্ত পাইলট প্রকল্পের সুনির্দিষ্ট স্থান নির্ধারণ করা হয়নি। খবর ডেইলি মেইলের।

জাতিসংঘের আবাসন বিভাগের সহকারী পরিচালক ভিক্টর কিসব জানান, ভাসমান শহর শুনতে অবাস্তব পরিকল্পনা মনে হলেও সঠিকভাবে নির্মাণ করা হলে এসব নগর অনেক সম্ভাবনার দুয়ার খুলে দেবে। নকশা প্রণয়ন শেষ হওয়ার পর এখন পরবর্তী চ্যালেঞ্জ বেসরকারি বাণিজ্যিকখাতের সঙ্গে একটি কার্যকর অংশীদারিত্ব গড়ে তোলা। এর মাধ্যমে পরীক্ষামূলক নগর স্থাপনার নানাদিক পরীক্ষা করে দেখা হবে।

জাতিসংঘ এমন সময় ভাসমান শহরের উদ্যোগ জোরদার করতে চায় যখন পৃথিবীর ৯০ শতাংশ বড় শহরই সমুদ্রের উচ্চতা বৃদ্ধির প্রেক্ষিতে প্লাবিত হওয়ার পথে। এই সমস্যা সমাধানে জাতিসংঘ বেসরকারি সংস্থা ওশিয়ানিক্স, ম্যাসাচুসেটস ইন্সটিটিউড অব টেকনোলজি (এমআইটি) এবং এক্সপ্লোরার্স ক্লাব এর সঙ্গে যৌথভাবে নকশা প্রণয়নের কাজ শুরু করে।

গত ৯ ফেব্রুয়ারি রোববার আবুধাবিতে অনুষ্ঠিত ওয়ার্ল্ড আরবান ফোরামে অংশ নিয়ে ওশিয়ানিক্স এর প্রধান পরিচালনা কর্মকর্তা মার্ক কলিন্স চেন এসব স্থাপনার দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া মোকাবেলা সক্ষমতা নিয়ে আলোচনা করেন।

কলিন্স বলেন, ভাসমান স্থাপনার নিরাপত্তা নিয়ে অনেকেই সন্দেহ পোষণ করেন। তাই আমরা মড্যিউলার এসব স্থাপনার সহনশীলতা পরীক্ষা করতে এমআইটি’র সমুদ্র প্রকৌশল অনুষদের অত্যাধুনিক পরীক্ষাগার ব্যবহার করছি। সেখানে সুনামি থেকে শুরু করে পঞ্চম মাত্রার হ্যারিকেন সকল প্রকার সম্ভাব্য বিপদে নগর স্থাপনার সহনশীলতা পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে।

নকশা অনুসারে উপকূল থেকে এক কিলোমিটার দূরে অগভীর সমুদ্রের তলদেশের ভূমিতে ভাসমান নগরের মূলভিত্তি স্থাপন করা হবে, যার সঙ্গে যুক্ত থাকবে পরবর্তী স্তরের ভাসমান প্ল্যাটফর্ম। আর এই ভাসমান প্ল্যাটফর্মের ওপরেই নির্মাণ করা হবে বসবাসের জন্য দরকারি বসতবাড়ি ও অন্যান্য স্থাপনা ।

সমুদ্রের আকস্মিক ঝড় এবং অন্যান্য আবহাওয়াগত পরিবর্তন থেকে ভাসমান নগরীর বাসিন্দাদের সুরক্ষা দিতে ভাসমান নগরে ইনসুলেশনের ব্যবস্থাও রাখছেন বিজ্ঞানীরা।

সান নিউজ/সালি

Copyright © Sunnews24x7
সবচেয়ে
পঠিত
সাম্প্রতিক

বিদ্যুৎ নেই রাজধানীসহ দেশের অধিকাংশ এলাকায়

সান নিউজ ডেস্ক : জাতীয় গ্রিডের একটি সঞ্চালন লাইনে বিভ্রাট দে...

চিকিৎসায় নোবেল পেলেন সুভান্তে প্যাবো

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: চলতি বছরের চিকিৎসাশাস্ত্রে নোবেল পুরস্কার...

তাইওয়ানে হামলা করবে না চীন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: মার্কিন প্রতির...

মাইন বিস্ফোরণে রোহিঙ্গা কিশোর নিহত

সান নিউজ ডেস্ক: বান্দরবানের নাইক্...

শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশের গুলি

সান নিউজ ডেস্ক: ইরানের রাজধানী তে...

আফ্রিকায় বিস্ফোরণে ৪ বাংলাদেশি শান্তিরক্ষী আহত

সান নিউজ ডেস্ক: মধ্য আফ্রিকা প্রজাতন্ত্রে জাতিসংঘের তত্ত্বাব...

জেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ বিদ্যোৎসাহী সাংবাদিক ফারুক

আমিরুল হক,স্টাফ রিপোর্টার : জাতীয়...

সন্ধ্যার পর বিদ্যুৎ স্বাভাবিক হবে

সান নিউজ ডেস্ক: জাতীয় গ্রিডের সঞ্চালন লাইনে বিপর্যয়ের কারণে...

ইমরান খান পৃথিবীর সবচেয়ে বড় মিথ্যাবাদী

সান নিউজ ডেস্ক: পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধী রাজ...

সৈয়দপুরে কিশোরের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

আমিরুল হক, স্টাফ রিপোর্টার : নীলফ...

লাইফস্টাইল
বিনোদন
sunnews24x7 advertisement
খেলা