বিশেষ সংবাদ

বিশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক

করোনা প্রতিরোধে বাংলাদেশকে হু’র সতর্কতা 

সান নিউজ ডেস্ক:

বাংলাদেশসহ দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোতে করোনা ভাইরাস মারাত্মক হয়ে উঠতে পারে বলে গভীর আশঙ্কার কথা জানায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু)। ভয়াবহ সেই পরিস্থিতি ঠেকাতে সীমান্ত, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, গণজমায়েত বন্ধ করে দেওয়াসহ দ্রুত বিভিন্ন কঠোর পদক্ষেপ নিতে বলেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার হু পরিচালক ডক্টর পুনাম ক্ষেত্রপাল সিং ১৭ মার্চ মঙ্গলবার এসব কথা বলেন। আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা যায়।

হু জানিয়েছে, বাংলাদেশ, শ্রীলংকা, ইন্দোনেশিয়া, থাইল্যান্ড ও উত্তর কোরিয়াসহ দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার ১১টি দেশের প্রায় সবগুলোতেই করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ছে। এ পরিস্থিতি মোকাবিলায় খুব দ্রুত কঠোর পদক্ষেপ নিতে হবে এসব দেশের সরকারকে।

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের হু পরিচালক বলেন, এ অঞ্চলে দিন দিন আরও বেশি করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ছে। আমাদের এ ভাইরাস মোকাবিলায় আরও জোরালো পদক্ষেপ নিতে হবে, এবং তা করতে হবে দ্রুত।

হু জানায়, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। কিছু কিছু দেশ সামাজিক মেলামেশার মাধ্যমে বড় মাত্রায় করোনা ভাইরাস সংক্রমণের দিকে এগিয়ে চলেছে।

লাগাতার করোনা ভাইরাস আক্রান্ত নিশ্চিত হতে পরীক্ষা, আক্রান্তকে চিহ্নিত করা, চিকিৎসা প্রদান, কোয়ারেন্টাইন করা ও তারা কাদের সঙ্গে মিশেছে তা খুঁজে বের করার কাজ চালিয়ে যেতে হবে বলে এরইমধ্যে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোকে জোর পরামর্শ দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

ক্ষেত্রপাল সিং বলেন, মানুষের মধ্যে সামাজিক মেলামেশা বন্ধ করতে হবে। এই ব্যাপারে আরও জোর দিতে হবে। এটি করতে পারলেই করোনার সংক্রমণ বহু মাত্রায় কমানো সম্ভব। আমাদের এই মুহূর্তেই কাজ শুরু করতে হবে।

এ অঞ্চলে এখন পর্যন্ত মালয়েশিয়ায় সবচেয়ে বেশি মাত্রায় করোনা ভাইরাস ছড়িয়েছে। এ দেশটিতে করোনা ছড়িয়ে পড়ার জায়গাটি ছিল এক তাবলীগ জামাত। ওই জামাতে প্রায় ১৬ হাজার মানুষ জমায়েত হয়েছিল। আর সেখান থেকেই করোনা ছড়িয়ে পড়ে।

এতদিনে এসে মালয়েশিয়া সীমান্ত বন্ধ ও সব ধরনের পর্যটক প্রবেশ নিষিদ্ধ করেছে। বন্ধ করেছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানও।

ইন্দোনেশিয়াতেও করোনা ভাইরাস ছড়াচ্ছে। সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ১৭২। এদিকে ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট ফেব্রুয়ারি মাসে করোনা ভাইরাসকে ‘চড় মারবেন’ বলে দায়িত্বজ্ঞানহীন মশকরাও করেন। কিন্তু এখন এ ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় সুদূরপ্রসারী কোয়ারেন্টাইনের মুখোমুখি দেশটি।

এদিকে মিয়ানমার ও লাওসে এখন পর্যন্ত কেউ করোনায় আক্রান্ত হয়নি বলে জানানো হচ্ছে। বিশেষজ্ঞরা এ ধরনের দাবিকে সন্দেহজনক মনে করছেন।

সব মিলিয়ে সার্বিক পরিস্থিতিতে বাংলাদেশসহ দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোকে করোনা প্রতিরোধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ায় আর গড়িমসি করার সুযোগ নেই। সে ক্ষেত্রে পরিস্থিতি করোনায় সবেচেয়ে বেশি ভুক্তভোগী দেশগুলোর মতো হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

কেননা এ অঞ্চলটি অধিক মাত্রায় ঘনবসতিপূর্ণ ও দরিদ্র। উন্নত দেশগুলোর মতো এসব দেশের সার্বিক সক্ষমতাও অনেক কম।

সান নিউজ/সালি

Copyright © Sunnews24x7
সবচেয়ে
পঠিত
সাম্প্রতিক

বাঘাইছড়িতে গুলি করে ইউপি সদস্য হত্যা

নিজস্ব প্রতিনিধি, : রাঙামাটি জেলা...

মুন্সীগঞ্জে দুগ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ১৫

নিজস্ব প্রতিনিধি, মুন্সীগঞ্জ : মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান জমিসং...

পরীক্ষা চলবে,আন্দোলন প্রত্যাহার

নিজস্ব প্রতিবেদক : ঢাকা বিশ্ববিদ্...

ঘরের কাজের জন্য স্ত্রীকে টাকা দিতে হবে 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ঘরোয়া কাজের জ...

নাসির ও তামিমার বিরুদ্ধে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক : ডিভোর্স না দিয়ে অন্যের স্ত্রীকে বিয়ে করার...

টিকা নেওয়ার পরও ৩ জনের করোনা শনাক্ত

ব্যুরো প্রধান, চট্টগ্রাম : কোভিড-১৯ টিকা (ভ্যাকসিন) নেওয়ার প...

এবার পরীক্ষার দাবি জানালেন শিক্ষকও

নিজস্ব প্রতিনিধি, চট্টগ্রাম : অসম...

স্কুল খোলার সিদ্ধান্ত শনিবার : শিক্ষামন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক: শিক্ষামন্ত্রী ড...

পিকআপ ও ট্রলির সংঘর্ষে দুই ভায়রা নিহত 

নিজস্ব প্রতিনিধি, টাঙ্গাইল : টাঙ্গাইল-জামালপুর সড়কের ধনবাড়ী...

লাইফস্টাইল
বিনোদন
sunnews24x7 advertisement
খেলা