জাতীয়

সত্য-মিথ্যা যাচাই ছাড়া ইন্টারনেটে কোনকিছু শেয়ার করবেন না: প্রধানমন্ত্রী

সাইবার নিরাপত্তা ও সাইবার অপরাধ সম্পর্কে সবাইকে সচেতন থাকার ওপর গুরুত্বারোপ করে সত্য-মিথ্যা যাচাই ছাড়া ইন্টারনেট এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কোনকিছু শেয়ার বা পোষ্ট না করার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বুধবার সকালে তৃতীয় ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবসের সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘দেশের মানুষকে আমি বলবো একটা কিছু আসলো (ইন্টারনেটে আপলোড হলো) অমনি সেটা শুনে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করা বা অন্য কিছু করা ঠিক নয়। সঠিক তথ্য যাচাই করে নেওয়া দরকার।’
তিনি বলেন, ‘যাচাই না করে শুধুমাত্র গুজবে কান দেয়া বা শুধুমাত্র নিজের কৌতুহলবশত সেগুলোতে প্রবেশ না করাই ভাল। কোন ধরনের মন্তব্য দেওয়া বা ছড়ানো বা সেটাতে হাত দেওয়াই উচিত নয়। ’
তিনি বলেন, ‘কোন পোষ্ট শেয়ার করতে গেলে আগে তার খোঁজ নিয়ে দেখতে হবে এটা কতটুকু সত্য বা মিথ্যা।’
‘এই অভ্যাস গড়ে তুললে সেটা আমাদের সমাজের জন্য, দেশের জন্য এবং প্রত্যেকের ব্যক্তি জীবনের জন্য মঙ্গল বয়ে আনবে, ’যোগ করেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, তথ্য-প্রযুক্তি খাতে নানা সুযোগ পেয়েও বিএনপির অজ্ঞতার কারণে তথ্য-প্রযুক্তিতে পিছিয়ে পড়েছিল বাংলাদেশ।

তথ্য প্রযুক্তি খাতের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তাঁর সরকার দেশের গ্রামাঞ্চলে ইন্টারনেট সুবিধা পৌঁছে দিতে সারাদেশে ৫ হাজার ৮শ’ ৬৫টি ডিজিটাল সেন্টার স্থাপন করেছে। শুধুমাত্র ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার থেকে ১০ বছরে মানুষকে ৪৬ কোটি সেবা দেওয়া হয়েছে।
তিনি বলেন, দেশে এখন মোবাইল ফোন গ্রাহক ১৬ কোটি ৪১ লক্ষ ৭০ হাজার। বিএনপি সরকারের এক মন্ত্রীর মনোপলি ব্যবসা ভেঙ্গে তাঁর সরকার মোবাইল ফোনকে বেসরকারী খাতে উন্মুক্ত করে দেওয়াতেই এটা সম্ভব হয়েছে। পাশাপাশি মহাকাশে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ সফলভাবে উৎক্ষেপণ করায় স্যাটেলাইটের মাধ্যমে প্রত্যন্ত অঞ্চলে সম্প্রচারভিত্তিক সেবা সম্প্রসারণ সহজ হয়েছে।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ৩ হাজার ৬শ’টি ইউনিয়ন ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট কানেক্টিভিটির আওতায় এনেছি, এ বছর আরও ২০০ ইউনিয়নে কানেক্টিভিটি দেওয়া হবে। ২০২১ সালের মধ্যে দুর্গম এলাকার বাকি ৭৭২টি ইউনিয়নে ইন্টারনেট সংযোগ পৌঁছে দিব। দেশে ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ৯ কোটি ৯৫ লক্ষ ৬৫ হাজারের বেশি।
সরকার প্রধান বলেন, ই-টেন্ডার ও ই-গভর্নেন্স বাস্তবায়নে সফলতা অর্জন করেছি। এক জায়গায় সকল সমস্যার সমাধান-এই লক্ষ্য নিয়ে ‘একসেবা’, ‘এক-পে’ ও ‘একশপ’ উদ্বোধন করা হয়েছে। একইসঙ্গে জনগণ ‘৯৯৯’, ‘৩৩৩’ এবং ‘১০৯’ নম্বরে কল করে বিভিন্ন জরুরি সেবা পাচ্ছে। শিশুদের ইন্টারনেট আসক্তি থেকে রক্ষা করে, সাইবার নিরাপত্তা ও অপরাধ সম্পর্কে নতুন প্রজন্মকে সচেতন করতে হবে।’

১৭২টি সরকারি সেবা সম্বলিত মাই গভ বা আমার সরকার নামে নতুন একটি অ্যাপ উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী তথ্য প্রযুক্তি খাতে বিশেষ অবদানের জন্য ১৪ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের মাঝে ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ-২০১৯’ সম্মাননা প্রদান করেন।

Copyright © Sunnews24x7
সবচেয়ে
পঠিত
সাম্প্রতিক

অভিযোগ করেও প্রতিকার পাননি মেয়র প্রার্থী

মো. নাজির হোসেন, মুন্সীগঞ্জ: স্থা...

কি এমন দুঃখ ছিল সাংবাদিক অভিশ্রুতির?

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি : সম্প্রতি গত ‍বৃহস্পতিবার (২৯ মার্চ)...

মনপুরায় চেয়ারম্যান পদে হাড্ডা-হাড্ডি লড়াই 

ভোলা সংবাদদাতা: আগামী ৯ মার্চ অনু...

বিচ্ছেদে কাজে ফোকাস ছিল

বিনোদন ডেস্ক: অভিনেত্রী জয়া আহসান...

বিজিবিও হবে বিশ্বমানের স্মার্ট বাহিনী

নিজস্ব প্রতিবেদক : আমরা বর্ডার গার্ড বাংলাদেশকে বিশ্বমানের আ...

সাফের ফাইনালে বাংলাদেশ

স্পোর্টস ডেস্ক : নেপালের কাঠমান্ডুতে সাফ অনূর্ধ্ব-১৬ নারী চ্...

রমজানে ব্যাংক লেনদেন ৫ ঘণ্টা

নিজস্ব প্রতিবেদক : আসন্ন রমজান মাস উপলক্ষে ব্যাংকে লেনদেনের...

ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে নোটিশ টানানো শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক: হাইকোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী, রাজধানীর যেসব...

দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ চ্যালেঞ্জ

নিজস্ব প্রতিবেদক : দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ আমাদের কাছে বড় চ্যা...

পাকিস্তানে ভারী তুষারপাতে নিহত ৩৫

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : পাকিস্তানের দুই প্রদেশ খাইবার পাখতুনখোয়া...

লাইফস্টাইল
বিনোদন
sunnews24x7 advertisement
খেলা