বিশেষ সংবাদ

বিশেষ সংবাদ

শিক্ষা

ঢাবির হল খুলছে না ১৭ মে

নিজস্ব প্রতিবেদক: আগামী ১৭ মে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল খুলে দেয়ার যে সিদ্ধান্ত হয়েছিল দেশের করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে তা থেকে সরে এলো বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, শিক্ষার্থীদের করোনার টিকা নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত হল বন্ধই থাকবে। টিকা নিশ্চিত হওয়ার অন্তত চার সপ্তাহ পর হল খুলে দেয়া হবে।

শুক্রবার গণমাধ্যমকে বিষয়টি জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ–উপাচার্য (শিক্ষা) এ এস এম মাকসুদ কামাল। গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভোস্ট স্ট্যান্ডিং কমিটি এক সভায় ওই সিদ্ধান্ত নেয়।

গত বছরের মার্চের শুরুতে দেশে করোনা রোগী শনাক্তের পর ২০ মার্চ হলগুলো খালি করে দেয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বিশ্ববিদ্যালয়টির স্বাভাবিক শিক্ষাকার্যক্রম বন্ধ আছে গত বছরের ১৮ মার্চ থেকে। এর মধ্যে অনলাইনে ক্লাস ও দুটি সেমিস্টারের মিডটার্ম পরীক্ষা হলেও আটকে আছে সব বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষা।

এরই মধ্যে চলতি বছরের শুরুতে করোনার সংক্রমণ কমে এলে ২২ ফেব্রুয়ারি শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি ঘোষণা দেন ১৭ মে থেকে সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর হল খুলে দেয়া হবে। আর শ্রেণিকক্ষে সরাসরি ক্লাস শুরু হবে আগামী ২৪ মে থেকে। ২৩ ফেব্রুয়ারি শিক্ষা পরিষদের (একাডেমিক কাউন্সিল) সভা ডেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্যও সরকারের এই সিদ্ধান্ত অনুমোদন করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

বিশেষজ্ঞ মত অনুযায়ী যেহেতু করোনা টিকার প্রথম ডোজের চার সপ্তাহ পর ইমিউনিটি হয় তাই তাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিল সরকারের প্রতি অনুরোধ জানায় যেন ১৭ এপ্রিলের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীকে টিকার প্রথম ডোজের আওতায় আনা হয়। সেটি হলে ১৭ মে থেকে তারা শিক্ষার্থীদের হলে উঠাতে পারেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সূত্র জানায়, এরপর করোনাভাইরাসের টিকা পেতে ২৪ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত নির্ধারিত ওয়েব লিংকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিবন্ধন করার নির্দেশনা দেয় কর্তৃপক্ষ। সেখানে ৩০ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী নিবন্ধন করেন। কিন্তু ১৭ এপ্রিলের পর দুই সপ্তাহ পেরোতে চললেও এখন পর্যন্ত করোনা টিকা নিশ্চিত করা যায়নি।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সহ–উপাচার্য এ এস এম মাকসুদ কামাল বলেন, বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) প্রভোস্ট স্ট্যান্ডিং কমিটিতে হওয়া সিদ্ধান্ত হলো পূর্বঘোষিত তারিখে (১৭ মে) হল খোলা হচ্ছে না। করোনা টিকার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েব লিংকে ৩০ হাজার শিক্ষার্থী নিবন্ধন করেছেন। কিন্তু টিকা এখনো নিশ্চিত হয়নি। করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতির পরিস্থিতি ও শিক্ষার্থীদের করোনা টিকা নিশ্চিত না হওয়ার প্রেক্ষাপট বিবেচনা করে প্রভোস্ট স্ট্যান্ডিং কমিটি নতুন সিদ্ধান্তটি নিয়েছে। করোনা পরিস্থিতি বিবেচনা ও টিকা নিশ্চিতের পরই শিক্ষার্থীদের হলে তোলার উদ্যোগ নেয়া হবে।

এদিকে রেজিস্ট্রার ভবন বন্ধ থাকলেও অতি জরুরি প্রয়োজনের ক্ষেত্রে যোগাযোগ করলে সহযোগিতা করা হবে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো. এনামউজ্জামান।

সান নিউজ/আরআই

Copyright © Sunnews24x7
সবচেয়ে
পঠিত
সাম্প্রতিক

বিপণিকেন্দ্রে 'ঠাঁই নেই ঠাঁই নেই' অবস্থা

রাসেল মাহমুদ: আসন্ন ঈদ-উল-ফিতরকে সামনে রেখে চলমান কঠোর বিধিন...

বজ্রপাতে প্রাণ গেল কৃষকের

মাসুম লুমেন, গাইবান্ধা : গাইবান্ধার ফুলছড়িতে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট...

শিমুলিয়ায় মাঝিসহ ৬ ট্রলার আটক

নিজস্ব প্রতিনিধি, মুন্সীগঞ্জ : মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া-বাংলাবা...

অ্যাপে অনীহা, যাত্রী চলছে কন্ট্রাক্টে

রাসেল মাহমুদ : ২০১৬ সালে অ্যাপভিত...

‘আওয়ামীলীগই দুর্যোগে মানুষের পাশে থাকে’

নিজস্ব প্রতিনিধি, শরীয়তপুর: পানি...

কাল চাঁদ দেখা গেলে বৃহস্পতিবার ঈদ

নিজস্ব প্রতিবেদক : বুধবার চাঁদ দে...

গোবর মেখে গোসল করলেই মিলবে করোনামুক্তি!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : প্রাণঘাতী করো...

গাইবান্ধায় বৃদ্ধের মরদেহ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিনিধি, গাইবান্ধা : গাই...

খালেদার রোগমুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল

নিজস্ব প্রতিনিধি, শরীয়তপুর: বিএনপ...

লাইফস্টাইল
বিনোদন
sunnews24x7 advertisement
খেলা