বিশেষ সংবাদ

বিশেষ সংবাদ

রাজধানীর আইপিএইচ স্কুল অ্যান্ড কলেজের গভর্নিং বডির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা একেএম জসিম উদ্দিন
শিক্ষা

আইপিএইচ স্কুল সভাপতির বিরুদ্ধে ‘ষড়যন্ত্রের’ অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীর আইপিএইচ স্কুল অ্যান্ড কলেজের গভর্নিং বডির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা একেএম জসিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করার অভিযোগ উঠেছে।

মহাখালীতে অবস্থিত এই প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনা কমিটির সদস্যসহ শিক্ষকদের দাবি-স্থানীয় একটি মহল ঈর্ষান্বিত হয়ে গণমাধ্যমে মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করছে। এতে প্রতিষ্ঠানটি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। সভাপতি নিজেও সামাজিক ও রাজনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন।

জানা গেছে, স্কুলের সভাপতি প্রতিষ্ঠানের টাকা আত্মসাৎ করেছেন বলে সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দায়ের করে পরিচালনা কমিটির সাবেক এক সদস্য। একই সাথে তার বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতা, অসদাচরণ, এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানীর অভিযোগ ওঠে। কমিটিকে না জানিয়ে ২৫ লাখ টাকার এফডিআর ভেঙেছেন বলেও অভিযোগ করা হয়। এছাড়া কমিটির সাবেক এক নারী সদস্যকে সন্ত্রাসীদের দিয়ে হুমকি দেয়ারও অভিযোগ ওঠে।

তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন সভাপতি একেএম জসিম উদ্দিন। তিনি সান নিউজকে বলেন, 'আমার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ করা হয়েছে তা ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত। স্কুলে আমার করা উন্নয়নমূলক কাজে ঈর্ষান্বিত হয়ে আমার প্রতিপক্ষরা এসব ষড়যন্ত্র করছে।

এদিকে, গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনের প্রতিবাদ জানিয়ে প্রতিবেদন দিয়েছে আইপিএইচ স্কুল অ্যান্ড কলেজের গভর্নিং বডির (২০১৬-১৮ ও ২০১৮-২০) সদস্যরা। প্রতিবাদ জানিয়েছে গভর্নিং বডি-এডহক (২০২০-২১) সদস্যরাও।

ওই প্রতিবাদ প্রতিবেদনে বলা হয়, সভাপতি একেএম জসিম উদ্দিন সাহেব প্রতিষ্ঠানের জন্য যা যা করেছেন তা গভর্নিং বডির সকল সদস্যের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী করেছেন। গভর্নিং বডির সিদ্ধান্তের বাইরে কোনো কাজ হয়নি।

প্রতিবেদনে বলা হয়, তিনি ২০১৪ সালে সভাপতি হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহণের পর প্রতিষ্ঠানের শৃঙ্খলার ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে; যা আগে ছিলো না। অবকাঠামোগত অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে, যা নজিরবিহীন। প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের চাহিদার প্রেক্ষিতে শিক্ষার মানোন্নয়নের জন্য বিষয়ভিত্তিক শিক্ষক নিয়োগ, শিক্ষার্থীদের ভালো ফলের জন্য আগ্রহী করার লক্ষ্যে তিনি ব্যক্তিগত তহবিল থেকে এ প্লাস (A+) প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের মধ্যে গোল্ড মেডেল দিয়ে যাচ্ছেন, যা প্রতিষ্ঠানে একটি দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। অসংখ্য গরিব, মেধাবী শিক্ষার্থীদের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে সাহায্য সহযোগিতা করেছেন।

প্রতিবাদ প্রতিবেদনে বলা হয়, তিনি একজন শিক্ষানুরাগী ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব। পড়াশুনার পাশাপাশি ছাত্র-ছাত্রীদেরকে খেলাধুলায়ও উৎসাহিত করেছেন। তার উৎসাহেই ছাত্র-ছাত্রীরা থানা ও মহানগরীতে বিভিন্ন ইভেন্টে বারবার চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ হওয়ার গৌরব অর্জন করেছে। তিনি আসার আগে শিক্ষক-কর্মচারীরা যে স্বল্প বেতন-ভাতা পেতেন তা মোটেও মানসম্মত ছিলো না। তিনি শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা বৃদ্ধিসহ নানাবিধ সুযোগ-সুবিধা বাড়িয়েছেন। এমনকি কোভিড- ১৯ মহামারি চলাকালীন সময়েও ২০২০ সালের বেতনাদী পরিশোধ করেছেন যা অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রেও সম্ভব হয়নি। তার ঐকান্তিক ইচ্ছায় নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের পি.এফ (বিশেষ অর্থ) প্রদান করেছে যা নজিরবিহীন।

বাইরের উচ্ছৃঙ্খল, বখাটে ছেলেদের দৌরাত্ম তিনি কঠোর হস্তে দমন করেছেন। এ কারণে প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার পরিবেশ সুন্দর হয়েছে। এক কথায় প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নের স্বার্থে যা করার দরকার তিনি আমাদেরকে নিয়ে তা করেছেন। সম্প্রতি কিছু পত্রিকায় একেএম জসিম উদ্দিন সাহেবকে হেয় প্রতিপন্ন করা এবং প্রতিষ্ঠানের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করার জন্য কিছু স্বার্থান্বেষী মহল যে সংবাদ পরিবেশন করেছে তা উদ্দেশ্যপ্রণোদিত এবং তার কোনো ভিত্তি নেই। প্রতিষ্ঠানের যাবতীয় আয়-ব্যয়ের হিসাব নিয়মিতভাবে অভ্যন্তরীণ অডিট কমিটি দ্বারা নিরীক্ষণ করা হয়। প্রতিষ্ঠানের ব্যয়ের হিসাব গভর্নিং বডির সভায় নিয়মিতভাবে অনুমোদন করা হয়। প্রতিষ্ঠানের আয়-ব্যয় সংক্রান্ত সকল তথ্য গভর্নিং বডির সভায় উত্থাপিত হয়, তাই নির্বাচিত সদস্যদের আয়-ব্যয়ের হিসাব জানানো হয় না বলে যে অভিযোগ উঠেছে তা ভিত্তিহীন।

সরকারিভাবে প্রতিষ্ঠানে যে সকল ভবন উর্ধ্বমুখী সম্প্রসারণ ও নতুন ভবনের কাজ চলছে তা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীন শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর কর্তৃক বিধি মোতাবেক টেন্ডারের মাধ্যমে ঠিকাদার নিয়োগ হয়ে থাকে সেখানে সভাপতি কর্তৃক ঠিকাদার নিয়োগের কোনো সুযোগ নেই।

তার বিরুদ্ধে যৌন সংক্রান্ত যে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে তা সত্য নয়। আমাদের জানামতে তিনি একজন সৎ ব্যক্তি। তার ব্যক্তিত্ব হরণ করার জন্যই একটি মহল এ ধরনের সংবাদ প্রকাশ করেছে। দশম শ্রেণির নির্বাচনী পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদেরকেই শুধু ফরম পূরণের সুযোগ দেয়া হয়েছে; যা গভর্নিং বডির প্রত্যেক সদস্যই অবহিত থাকেন।

২৫ লাখ টাকার এফডিআর প্রসঙ্গে যে প্রশ্ন উঠেছে তা সত্য নয়। এই ২৫ লাখ টাকা সম্মানিত সভাপতির আমলেই এফডিআর করা হয়েছিলো এবং প্রতিষ্ঠানের কাজে গভর্নিং বডির সিদ্ধান্ত মোতাবেক এফডিআর ভেঙে প্রতিষ্ঠানের জেনারেল ফান্ডে স্থানান্তরিত হয় যা ব্যাংক স্টেটমেন্ট ও কলামনার ক্যাশ বইতে লিপিবদ্ধ আছে। সাবেক অভিভাবক সদস্য জনাবা রুনু তার মেয়েকে একই সাথে দুই প্রতিষ্ঠানে ভর্তি করেছিলেন বিধায় মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বোর্ড, ঢাকা তার মেয়ের ছাত্রত্ব ও তার অভিভাবক সদস্য পদ বাতিল করেছে। এ ব্যাপারে সভাপতি মহোদয়ের কোনো প্রভাব ছিলো না।

এদিকে প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষকরাও সভাপতি জসিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগের প্রতিবাদ জানিয়েছে। প্রতিষ্ঠানের ৪১ জন শিক্ষকের মধ্যে ৪০ জন সদস্য স্বাক্ষরিত একটি প্রতিবাদ প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, যে একজন স্বাক্ষর করেননি তিনি অসুস্থ থাকায় স্বাক্ষর করতে পারেননি।

সামগ্রিক বিষয়ে জানতে চাইলে সভাপতি একেএম জসিম উদ্দিন সান নিউজকে বলেন, স্থানীয় কাউন্সিলর নাসির উদ্দিন এই প্রতিষ্ঠানে গভর্নিং বডির সভাপতি হতে চায়। ইতিপূর্বে আমার সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতাও করেছে। কিন্তু হতে পারেনি। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে সে আমার বিরুদ্ধে গণমাধ্যমে মিথ্যাচার করেছে।

তিনি বলেন, আমি প্রতিষ্ঠানের সভাপতির দায়িত্ব নেয়ার পর শিক্ষা কার্যক্রমকে গতিশীল করতে নানামুখী পদক্ষেপ নিয়েছি। জিপিএ-৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদেরকে নিজের তহবিল থেকে স্বর্ণ পদক দিয়ে থাকি। সব শ্রেণিতে যেন ভালো ফল হয় তার জন্য সব সময় শিক্ষকদের পরামর্শ ও সহযোগিতা করে যাচ্ছি।

তিনি আরও বলেন, প্রতিষ্ঠানের অবকাঠামোগত উন্নয়নসহ নানা কাজ আমি করেছি। প্রতিষ্ঠানে বায়োমেট্রিক হাজিরা ব্যবস্থা করা হয়েছে, নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে সিসি টিভি লাগিয়েছি। এতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের যাবতীয় কর্মকাণ্ড মনিটরিং করা সহজ হয়েছে। এছাড়া মেয়েদের জন্য হাইজেনিক টয়লেট করেছি। দৃষ্টি নন্দন গেটও করা হয়েছে। উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে স্বার্থান্বেষী একটি মহল আমার বিরুদ্ধে কুৎসা রটাচ্ছে। আমি এর তীব্র প্রতিবাদ করছি।

উল্লেখ্য, একেএম জসিম উদ্দিন দীর্ঘদিন ধরে বনানী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

সান নিউজ/এসএস

Copyright © Sunnews24x7
সবচেয়ে
পঠিত
সাম্প্রতিক

সিলেটে দুই বাসের সংঘর্ষে ৮ জন নিহত

নিজস্ব প্রতিনিধি, সিলেট : ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের রশিদপুরে এনা প...

পুলিশের কাছে অভিযোগ দেয়ায় হামলা, আহত ৫

নিজস্ব প্রতিনিধি, পিরোজপুর : পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে জমি নিয়...

লিটলম্যাগ স্টল বরাদ্দের আবেদন শুরু রোববার

হাসনাত শাহীন: বাংলা ভাষা সাহিত্যের চর্চা, বিকাশ, ব...

তরুণী মেয়েকে খুনের অভিযোগ মায়ের বিরুদ্ধে

মাসুম লুমেন, গাইবান্ধা: গাইবান্ধায় নিজের মেয়েকে ধারালো বটি দ...

মুশতাকের মৃত্যুর কারণ অনুসন্ধানে তদন্ত কমিটি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

চট্টগ্রাম ব্যুরো : কারাগারে লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর কারণ...

বেস্ট কর্পোরেট গোল্ড অ্যাওয়ার্ড পেল ইসলামী ব্যাংক

নিজস্ব প্রতিবেদক : বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংক (ইসলামিক অপারেশ...

হাইতির কারাগার থেকে ৪শ’ বন্দি পালায়ন, নিহত ২৫

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : হাইতির একটি...

ইরানকে উদ্দেশ্য করে সিরিয়ায় বিমান হামলা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : বাইডেনের ক্ষম...

খাশোগি হত্যায় ৭৬ সৌদি নাগরিকের ওপর নিষেধাজ্ঞা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্...

লাইফস্টাইল
বিনোদন
sunnews24x7 advertisement
খেলা